যোহনের কাছে প্রকাশিত বাক্য ১২:১-১৭

  • একজন নারী, একটি ছেলে এবং এক ভয়ংকর সাপ (১-৬)

  • মীখায়েল ভয়ংকর সাপের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করল (৭-১২)

    • ভয়ংকর সাপকে পৃথিবীতে নিক্ষেপ করা হল ()

    • দিয়াবল জানে, তার সময় অল্প (১২)

  • ভয়ংকর সাপ নারীকে তাড়না করে (১৩-১৭)

১২  পরে স্বর্গে এক মহৎ চিহ্ন দেখা গেল: একজন নারী, যার পোশাক হল সূর্য এবং চাঁদ তার পায়ের নীচে রয়েছে আর তার মাথায় ১২টা তারা দিয়ে তৈরি একটা মুকুট রয়েছে ২  এবং সে গর্ভবতী। আর যেহেতু সে শীঘ্রই সন্তানের জন্ম দেবে, তাই সে প্রসববেদনায় চিৎকার করছে। ৩  এরপর, স্বর্গে আরেকটা চিহ্ন দেখা গেল। দেখো! আগুনের মতো লাল এক প্রকাণ্ড ভয়ংকর সাপ, যেটার সাতটা মাথা এবং দশটা শিং রয়েছে আর সাতটা মাথায় সাতটা মুকুট রয়েছে; ৪  আর সেই ভয়ংকর সাপ এর লেজ দিয়ে আকাশের এক-তৃতীয়াংশ তারা টেনে এনে সেগুলোকে পৃথিবীতে নিক্ষেপ করল। আর যে-নারী শীঘ্রই সন্তানের জন্ম দেবে, তার সামনে সেই ভয়ংকর সাপ দাঁড়িয়ে রইল, যেন নারী সন্তান জন্ম দেওয়ার সঙ্গেসঙ্গে সেই ভয়ংকর সাপ তার সন্তানকে গ্রাস করতে পারে। ৫  পরে সেই নারী এক ছেলের জন্ম দিল, যিনি লোহার দণ্ড দিয়ে সমস্ত জাতিকে শাসন করবেন। আর তার সন্তানকে কেড়ে নিয়ে* ঈশ্বর এবং তাঁর সিংহাসনের কাছে নিয়ে যাওয়া হল। ৬  আর সেই নারী প্রান্তরে পালিয়ে গেল। সেখানে ঈশ্বর তার জন্য এক স্থান প্রস্তুত করে রেখেছেন, যেন সেখানে ১,২৬০ দিন পর্যন্ত তার যত্ন নেওয়া হয়। ৭  পরে স্বর্গে যুদ্ধ হল: মীখায়েল* এবং তাঁর স্বর্গদূতেরা সেই ভয়ংকর সাপের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করল আর সেই ভয়ংকর সাপ এবং এর স্বর্গদূতেরাও তাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করল, ৮  কিন্তু, এরা জয়ী হতে পারল না* এবং স্বর্গে এদের জন্য আর কোনো স্থান থাকল না। ৯  সেই প্রকাণ্ড ভয়ংকর সাপকে পৃথিবীতে নিক্ষেপ করা হল; এ সেই পুরোনো সাপ, যেটাকে দিয়াবল ও শয়তান বলা হয়। এ পৃথিবীতে বসবাসকারী সমস্ত লোককে ভ্রান্ত করে; এ-কে নিক্ষেপ করা হল এবং এর সঙ্গে এর স্বর্গদূতদেরও নিক্ষেপ করা হল। ১০  পরে আমি স্বর্গে উচ্চস্বরে এই কথাগুলো বলতে শুনলাম: “দেখো! আমাদের ঈশ্বর লোকদের জন্য পরিত্রাণ এনেছেন এবং তাঁর ক্ষমতা প্রকাশ পেয়েছে এবং তাঁর রাজ্য স্থাপিত হয়েছে এবং তাঁর খ্রিস্টের কর্তৃত্ব শুরু হয়েছে, কারণ আমাদের ভাইদের সেই দোষারোপকারীকে পৃথিবীতে নিক্ষেপ করা হয়েছে, যে ঈশ্বরের সামনে দিনরাত তাদের নামে দোষারোপ করে! ১১  আর তারা মেষশাবকের রক্ত দ্বারা এবং তারা যে-বাক্য সম্বন্ধে সাক্ষ্য দিয়েছে, সেটার দ্বারা তাকে পরাজিত করল। আর তারা যখন মৃত্যুর মুখোমুখি হয়েছিল, তখন তারা নিজেদের জীবনকে প্রিয় বলে মনে করেনি। ১২  অতএব, হে স্বর্গ এবং স্বর্গে বসবাসকারীরা, আনন্দ করো! কিন্তু, পৃথিবীর ও সমুদ্রের জন্য বিপর্যয়! কারণ দিয়াবল তোমাদের কাছে নেমে গিয়েছে। সে প্রচণ্ড রেগে আছে, কারণ সে জানে, তার সময় অল্প।” ১৩  সেই ভয়ংকর সাপ যখন দেখল যে, এ-কে পৃথিবীতে নিক্ষেপ করা হয়েছে, তখন এটা সেই নারীকে তাড়না করতে লাগল, যে ছেলের জন্ম দিয়েছিল। ১৪  কিন্তু, সেই নারীকে একটা বড়ো ঈগল পাখির দুটো পাখা দেওয়া হল, যাতে প্রান্তরে তার জন্য যে-স্থান প্রস্তুত করা হয়েছে, সেখানে সে উড়ে যেতে পারে। সেখানে সাপের চোখের আড়ালে এক কাল, দুই কাল ও অর্ধকাল* পর্যন্ত তার যত্ন নেওয়া হবে। ১৫  পরে সেই সাপ এর মুখ থেকে সেই নারীর পিছনে নদীর জলের মতো জলপ্রবাহ বের করল, যাতে সেই নারী নদীর জলে ডুবে যায়। ১৬  কিন্তু, পৃথিবী সেই নারীকে সাহায্য করল আর সেই ভয়ংকর সাপ এর মুখ থেকে যে-নদী বের করেছিল, পৃথিবী এর মুখ খুলে তা খেয়ে ফেলল। ১৭  এতে সেই ভয়ংকর সাপ সেই নারীর প্রতি ক্রুদ্ধ হল এবং তার বংশধরের* সেই অবশিষ্ট লোকদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করার জন্য গেল, যারা ঈশ্বরের আজ্ঞা পালন করে এবং যাদের যিশুর বিষয়ে সাক্ষ্য দেওয়ার কাজ দেওয়া হয়েছে।

পাদটীকাগুলো

বা “সন্তানকে ধরে।”
অর্থ “কে ঈশ্বরের তুল্য?”
বা সম্ভবত, “এ [অর্থাৎ সেই ভয়ংকর সাপ] পরাজিত হল।”
অর্থাৎ সাড়ে তিন কাল।
আক্ষ., “বীজের।”