সরাসরি বিষয়বস্তুতে যান

সরাসরি বিষয়সূচিতে যান

যেভাবে আপনার দান ব্যবহার করা হয়

ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে মণ্ডলীর সভা

ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে মণ্ডলীর সভা

জুন ২৬, ২০২০

পৃথিবীব্যাপী অনেক সরকার সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার এবং লোকেদের এক জায়গায় একত্র না হওয়ার আদেশ দিয়েছে। যিহোবার সাক্ষিরা দৃঢ়তার সঙ্গে এই আদেশের বাধ্য হওয়ার পাশাপাশি সুরক্ষিতভাবে নিজেদের সভা পরিচালনা করছে। মণ্ডলীগুলো তা করার জন্য এখন জুম-এর মতো ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ ব্যবহার করছে।

পরিচালকগোষ্ঠী দানকৃত তহবিল ব্যবহার করে মণ্ডলীর জন্য জুম অ্যাকাউন্ট কেনার অনুমতি দিয়েছে, যাতে নিয়মিতভাবে আমাদের সভা পরিচালনা করা যায়। এই ব্যবস্থা কিছু মণ্ডলীর জন্য অনেক সাহায্যকারী বলে প্রমাণিত হয়েছে কারণ তাদের সেই অ্যাকাউন্ট কেনার সামর্থ্য ছিল না, যেটার দাম প্রায় ১৫-২০ ডলার বা এর চেয়েও বেশি। প্রথমে এই মণ্ডলীগুলো কিছু ফ্রি অ্যাপ ব্যবহার করছিল, যেগুলোতে মাত্র কয়েক জনই যোগ দিতে পারত আর খুব-একটা সুরক্ষিত ছিল না। কিন্তু, যে-সমস্ত মণ্ডলী এখন সংগঠনের জুম অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করছে, সেটাতে সহজেই সিকিউরিটি সেটিংস্‌ নিয়ন্ত্রণ করা যায় আর প্রত্যেক সভায় অনেক লোক এতে যোগ দিতে পারে। এখনও পর্যন্ত ১৭০টারও বেশি দেশে ৬৫,০০০-রেরও বেশি মণ্ডলী এই অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করছে।

ইন্দোনেশিয়াতে অবস্থিত মানাডো, উত্তর সুলাওয়েসির কাইরাগী মণ্ডলী ফ্রি ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ ব্যবহার করা বন্ধ করে সংগঠনের জুম অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করতে শুরু করেছে। ভাই হাদি সানতোসো বলেন: “এমনকী সেই ভাই-বোনেরাও এখন সভায় যোগ দিতে এবং তা উপভোগ করতে পারে, যারা ইলেকট্রনিক ডিভাইস ব্যবহার করতে জানে না। কারণ সভা চলাকালীন পুরোনো অ্যাপের মতো তাদের আর বার বার লগ ইন করার প্রয়োজন হয় না।”

ইকুয়েডরের গায়াকুইলে অবস্থিত গায়াকানেস্‌ ওয়েস্তে মণ্ডলীর একজন প্রাচীন ভাই লেস্টার হিহোন জুনিয়র বলেন: “অনেক ভাই-বোনের আর্থিক অবস্থা এতটাই খারাপ যে, কোনো কোনো মণ্ডলীর পক্ষে জুম লাইসেন্সের জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ জোগাড় করা এবং মণ্ডলীর প্রত্যেকের পক্ষে সভায় যোগ দেওয়া হয়তো অসম্ভব হয়ে যেত। কিন্তু, এখন আমাদের কাছে জুম অ্যাকাউন্ট রয়েছে, যেটার মাধ্যমে অনেক ভাই-বোন সভায় যোগ দিতে পারছে আর এর জন্য আমরা সংগঠনকে মন থেকে ধন্যবাদ দিতে চাই। এ ছাড়া, আমরা অন্যদেরও এতে আমন্ত্রণ জানাতে পারি আর এই ভয়ও থাকে না যে, যোগদানকারীদের একটা নির্দিষ্ট সংখ্যা পার হয়ে গেলে আর কেউ যোগ দিতে পারবে না।”

জাম্বিয়ার লুসাকায় অবস্থিত উঙয়েরেরে উত্তর মণ্ডলীর একজন প্রাচীন ভাই জনসন মোওয়ানজা লিখেছিলেন: “অনেক ভাই-বোন বার বার এই কথা বলেছে, ‘সংগঠন থেকে জুম-এর ব্যবস্থা হওয়ার ফলে আমরা শুধুমাত্র ভাই-বোনদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ হতে পেরেছি এমন নয় বরং এটা আমাদের অনুভব করতে সাহায্য করেছে যে, যিহোবা আমাদের কতটা ভালোবাসেন ও যত্ন নেন।’”

ত্রাণ কাজের জন্য আলাদা করে রাখা তহবিল ব্যবহার করে সংগঠন এই অ্যাকাউন্টগুলো কিনে থাকে। বিশ্বব্যাপী কাজের জন্য দেওয়া স্বেচ্ছাকৃত দানের দ্বারা এই অর্থ প্রাপ্তিসাধ্য হয়েছে। বেশিরভাগ দান donate.jw.org-এর মাধ্যমে দেওয়া হয়। উদারভাবে করা এই দানের জন্য আমরা আপনাদের ধন্যবাদ জানাতে চাই, যেটা পৃথিবীব্যাপী আরও অন্যান্য ত্রাণ কাজে সাহায্য করে থাকে।—২ করিন্থীয় ৮:১৪.