সরাসরি বিষয়বস্তুতে যান

সরাসরি বিষয়সূচিতে যান

২০১৭ সালের গিলিয়েড স্কুলের একটা ক্লাসের সময়

যেভাবে আপনার দান ব্যবহার করা হয়

গিলিয়েড স্কুল—বিশ্বব্যাপী এর প্রসার

গিলিয়েড স্কুল—বিশ্বব্যাপী এর প্রসার

ডিসেম্বর ১, ২০২০

প্রতি বছর নিউ ইয়র্কের প্যাটারসনে ওয়াচটাওয়ার এডুকেশনাল সেন্টারে, ওয়াচটাওয়ার বাইবেল স্কুল অভ্‌ গিলিয়েড অনুষ্ঠিত হয়। * সারা পৃথিবী থেকে পূর্ণসময়ের অনেক দাসকে সেখানে আমন্ত্রণ জানানো হয়। যিহোবার সংগঠনে বিভিন্ন কার্যভার আরও ভালোভাবে পালন করার জন্য তারা এই স্কুল থেকে প্রশিক্ষণ লাভ করে। সারা পৃথিবীতে যে-সমস্ত মণ্ডলী ও শাখা অফিস রয়েছে, সেগুলোকে শক্তিশালী ও সুস্থির করার জন্য তারা এই প্রশিক্ষণ কাজে লাগায়।

গিলিয়েড সত্যিই এক আন্তর্জাতিক স্কুল। উদাহরণ স্বরূপ, ২০১৯ সালে ১৪৭তম ক্লাসে ২৯টা দেশের ৫৬ জন ছাত্র-ছাত্রী যোগ দেয়। এরা প্রত্যেকেই পূর্ণসময়ের দাস, যেমন বেথেলকর্মী, সীমা অধ্যক্ষ, মিশনারি অথবা বিশেষ অগ্রগামী।

প্রথম ক্লাস শুরু হওয়ার অনেক আগে থেকেই এই স্কুলের জন্য প্রস্তুতি নেওয়া শুরু হয়। যেমন, বিশ্বপ্রধান কার্যালয়ের ভ্রমণ বিভাগ (WHQ Travel) এই স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য প্লেনের টিকেট কেনে। ১৪৭তম ক্লাসের প্রত্যেক বিদেশি ছাত্র-ছাত্রীর জন্য প্যাটারসনে আসা-যাওয়া করতে গড়ে ১,০৭৫ মার্কিন ডলার খরচ হয়। সলোমন দ্বীপপুঞ্জের ছাত্র বা ছাত্রীকে প্যাটারসনে আসার জন্য চার বার এবং নিজ দেশে ফিরে যাওয়ার জন্য তিন বার ফ্লাইট পরিবর্তন করতে হয়। এই যাত্রার জন্য তাদের ৩৫,৪০০ কিলোমিটারেরও (২২,০০০ মাইল) বেশি পথ পাড়ি দিতে হয়! এই ফ্লাইটগুলোর জন্য প্রত্যেক ছাত্র বা ছাত্রীর পিছনে ২,৩০০ মার্কিন ডলার খরচ হয়। খরচ বাঁচানোর উদ্দেশে WHQ Travel কম দামে টিকেট পাওয়ার জন্য কম্পিউটারে বুকিং দিয়ে থাকে। আর বুকিং দেওয়ার পরও তারা কয়েক সপ্তাহ, এমনকী কয়েক মাস ধরে ক্রমাগত চেক করতে থাকে, যাতে আরও কম দামে টিকেট পাওয়া যায়। এ ছাড়া, WHQ Travel টিকেট কাটার জন্য অন্যদের দান করা এয়ারলাইন ক্রেডিট ও মাইলেজ ব্যবহার করে থাকে।

যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার জন্য অনেক ছাত্র বা ছাত্রীর ভিসার প্রয়োজন হয়। বিশ্বপ্রধান কার্যালয়ের আইন বিভাগ ছাত্র-ছাত্রীদের এই ভিসা পেতে সাহায্য করে। ভিসা ও রেজিস্ট্রেশনের জন্য প্রত্যেক ছাত্র বা ছাত্রীর পিছনে গড়ে ৫১০ মার্কিন ডলার খরচ হয়।

ছাত্র-ছাত্রীরা যে-প্রশিক্ষণ পায়, তা থেকে আমরা কীভাবে উপকার লাভ করি? হেন্ড্রা গুনাওয়ান নামে একজন ভাই দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় একজন প্রাচীন হিসেবে সেবা করেন। তার মণ্ডলীতে গিলিয়েড গ্র্যাজুয়েট এক দম্পতি রয়েছে। তিনি বলেন, “আগে আমাদের মণ্ডলীতে কোনো নিয়মিত অগ্রগামী ছিল না। কিন্তু, সেই দম্পতি আসার পর তাদের উদ্যোগী এবং ইচ্ছুক মনোভাব অন্যদের উপর প্রভাব ফেলে আর কেউ কেউ অগ্রগামীর কাজ শুরু করার সিদ্ধান্ত নেয়। পরবর্তী সময়ে, আমাদের মণ্ডলীর একজন বোন এমনকী রাজ্যের সুসমাচার প্রচারকদের জন্য স্কুল-এ যোগ দেয়!”

সের্গিও পানজেইতান নামে একজন ভাই দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার একটা বেথেলে গিলিয়েড গ্র্যাজুয়েটদের সঙ্গে কাজ করেন। তিনি বলেন: “তারা যে-প্রশিক্ষণ পেয়েছে, সেটা থেকে শুধু তারাই উপকার লাভ করেনি; এই প্রশিক্ষণ থেকে আমরাও উপকার লাভ করেছি। তারা অনেক কিছু শিখেছে! কিন্তু, সেই শিক্ষা লাভ করার কারণে তারা নিজেদের বড়ো করে তুলে ধরেনি, বরং অন্যদের তা শিখিয়েছে। এটা আমাদের উৎসাহিত করেছে আর আমরাও অন্যদের উৎসাহিত করেছি।”

কীভাবে এই স্কুলের খরচ মেটানো হয়? বিশ্বব্যাপী দানের মাধ্যমে। এর মধ্যে অনেক দান donate.jw.org-এর মাধ্যমে দেওয়া হয়। আপনার উদার দানের জন্য অনেক ধন্যবাদ, যা সারা পৃথিবী থেকে আসা ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য এই স্কুলে ব্যবহার করা হয়।

^ অনু. 1 যিহোবার সাক্ষিদের পরিচালকগোষ্ঠীর টিচিং (শিক্ষাদান সংক্রান্ত) কমিটির নির্দেশনায় ঐশিক স্কুল বিভাগ এই স্কুলের ব্যবস্থা করে থাকে। এই বিভাগের নির্দেশকেরা এবং পরিচালকগোষ্ঠীর সদস্যসহ অন্যান্য অতিথি নির্দেশকও এই স্কুলে শিক্ষা দিয়ে থাকে।