হ্যাঁ, যিহোবার সাক্ষিরা প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় প্রায়ই ত্রাণ কাজে সাহায্য করে থাকে। সাক্ষি হোক বা না হোক, এমন সমস্ত ব্যক্তিদের আমরা ব্যাবহারিক উপায়ে ত্রাণ সাহায্য প্রদান করি, আর এটা গালাতীয় ৬:১০ পদে দেওয়া বাইবেলের এই নীতির সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ: “আইস, আমরা ... সকলের প্রতি, বিশেষতঃ যাহারা বিশ্বাস-বাটীর পরিজন, তাহাদের প্রতি সৎকর্ম্ম করি।” এ ছাড়া, আমরা দুর্যোগের সময়ে ক্ষতিগ্রস্ত লোকেদের আবেগগতভাবে ও আধ্যাত্মিকভাবে সাহায্য করে থাকি।—২ করিন্থীয় ১:৩, ৪.

সংগঠন

কোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগের পর, ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার বিভিন্ন মণ্ডলীর প্রাচীনরা সেইসমস্ত ব্যক্তিদের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেন, যারা তাদের মণ্ডলীর সঙ্গে মেলামেশা করে থাকে। তারা সুরক্ষিত আছেন কি না আর তাদের কোন কোন সাহায্যের প্রয়োজন রয়েছে, তা জানার জন্য প্রাচীনরা তা করে থাকেন। এরপর, প্রাচীনরা তাদের সমীক্ষা ও প্রাথমিক ত্রাণ কাজের ফলাফল স্থানীয় যিহোবার সাক্ষিদের শাখা অফিসে জানান।

যদি প্রয়োজনীয় ত্রাণ সাহায্য জোগানো সেই এলাকার মণ্ডলীর সামর্থ্যের বাইরে হয়, তবে যিহোবার সাক্ষিদের পরিচালকগোষ্ঠী প্রয়োজনীয় ত্রাণসামগ্রী সরবরাহ করার ব্যবস্থা করে থাকে। এই কাজ প্রাথমিক খ্রিস্টানদের অনুকরণে করা হয়ে থাকে, যারা দুর্ভিক্ষের সময় একই উপায়ে একে অপরের যত্ন নিয়েছিল। (১ করিন্থীয় ১৬:১-৪) স্থানীয় শাখা অফিস এই কাজ সংগঠিত করার ও পরিচালনা দেওয়ার জন্য দুর্যোগ ত্রাণ কমিটিকে নিযুক্ত করে। অন্যান্য জায়গার সাক্ষিরা এই কাজে সাহায্য করার জন্য তাদের সময় ও সম্পদ ব্যবহার করে।—হিতোপদেশ ১৭:১৭.

তহবিল

যিহোবার সাক্ষিদের শাখা অফিসে পাঠানো দানের একটা অংশ দুর্যোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের সাহায্যের জন্য ব্যবহৃত হয়ে থাকে। (প্রেরিত ১১:২৭-৩০; ২ করিন্থীয় ৮:১৩-১৫) যেহেতু এই কাজ স্বেচ্ছাসেবীদের দ্বারা বিনা বেতনে করা হয়, তাই বরাদ্দ অর্থের পুরোটাই ত্রাণ কাজে ব্যবহৃত হয়, তত্ত্বাবধান খাতে কোনো খরচ হয় না। আমরা সমস্ত দান ব্যবহার করার ক্ষেত্রে খুবই সতর্ক থাকি।—২ করিন্থীয় ৮:২০.