সরাসরি বিষয়বস্তুতে যান

যুবক-যুবতীদের জিজ্ঞাস্য

কেন কিংডম হলের সভায় যোগ দেব?

কেন কিংডম হলের সভায় যোগ দেব?

যিহোবার সাক্ষিরা সপ্তাহে দু-বার তাদের উপাসনার স্থানে সভা করে থাকে আর এই উপাসনার স্থানকে তারা কিংডম হল বলে। এই সভাগুলোতে কী হয়? আর তুমি সেখানে উপস্থিত হলে কীভাবে উপকার লাভ করতে পারবে?

 কিংডম হলে কী হয়?

কিংডম হল একটা শেখার জায়গা, যেখানে এই বিষয়ে জোর দেওয়া হয় যে, বাইবেলের শিক্ষা আমরা কীভাবে কাজে লাগাতে পারি। কিংডম হলের সভাগুলোতে উপস্থিত হওয়ার মাধ্যমে তুমি . . .

  • ঈশ্বর সম্বন্ধে সত্য জানতে পারবে।

  • সারা বিশ্বে যে-ঘটনাগুলো ঘটছে, সেগুলোর কারণ জানতে পারবে।

  • আরও ভালো ব্যক্তি হয়ে উঠতে পারবে।

  • খুব ভালো বন্ধুবান্ধব খুঁজে পেতে পারবে।

তুমি কি জান? যিহোবার সাক্ষিদের সভার জায়গাকে কিংডম হল বলা হয় কারণ সেখানে বিশেষ করে ঈশ্বরের রাজ্য নিয়ে আলোচনা করা হয়ে থাকে।—মথি ৬:৯, ১০; ২৪:১৪; লূক ৪:৪৩.

 কেন সেখানে উপস্থিত হবে?

সেখানে যে-বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করা হয়, সেগুলো তোমাকে সাহায্য করতে পারে। যিহোবার সাক্ষিদের সভাগুলোতে বাইবেলের যে-নীতিগুলো নিয়ে আলোচনা করা হয়, সেগুলো থেকে তুমি ‘প্রজ্ঞা উপার্জ্জন করিতে’ পারবে। (হিতোপদেশ ৪:৫) এর অর্থ হল, বাইবেল তোমাকে জীবনে ভালো সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করতে পারে। এটি তোমাকে জীবনের গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নগুলোর উত্তরও লাভ করতে সাহায্য করতে পারে, যেমন:

সপ্তাহের ছুটির দিনগুলোতে আমাদের সভায় যে-বক্তৃতাগুলো দেওয়া হয়ে থাকে, সেগুলোর মধ্যে কয়েকটার শিরোনাম হল:

  • কেন বাইবেলের দ্বারা নির্দেশিত হবেন?

  • দুর্দশার সময় আপনি কোথায় সাহায্য পেতে পারেন?

  • ঈশ্বরের রাজ্য এখনই আমাদের জন্য যা সম্পাদন করছে।

“একদিন আমাদের একটা সভায় আমার এক সহপাঠী আসে। ও আমার পরিবারের সঙ্গে বসে আর আমরা ওকে যে-বিষয়বস্তু থেকে আলোচনা হচ্ছিল, সেগুলো দেখাই। সভার পর ও আমাদের জানায় যে, শ্রোতারা যেভাবে মন্তব্য করছিল, তা দেখে ওর খুব ভালো লেগেছে। ও আরও বলে যে, আলোচনার জন্য আমাদের সভায় যে-ধরনের বইপত্র ব্যবহার করা হয়, ওদের গির্জায় এমন কিছুই নেই।”—ব্রেন্ডা।

তুমি কি জান? কিংডম হলের সভায় আসার জন্য কোনো প্রবেশমূল্য লাগে না আর এখানে কখনো কোনো চাঁদা তোলা হয় না।

সেখানকার লোকদের সঙ্গে মেলামেশা করে তুমি উৎসাহিত হবে। বাইবেল বলে, খ্রিস্টানরা যেন একসঙ্গে মিলিত হয়, যাতে তারা ‘একে অন্যকে উৎসাহিত করে।’ (ইব্রীয় ১০:২৪, ২৫) এই জগতে বেশিরভাগ লোকই শুধু নিজের বিষয়ে চিন্তা করে থাকে। কিন্তু, যে-ব্যক্তিরা নিজের চেয়ে বেশি ঈশ্বরের বিষয়ে এবং অন্যদের বিষয়ে চিন্তা করে, সেই ব্যক্তিদের সঙ্গে সভায় মেলামেশা করে তোমার খুবই ভালো লাগবে।

“সারা দিনের পর মাঝে মাঝে আমি নিরাশ ও ক্লান্ত হয়ে পড়ি। কিন্তু, কিংডম হলের সভায় গিয়ে এবং সেখানকার লোকদের সঙ্গে মেলামেশা করে আমার খুব ভালো লাগে। সভা শেষ করে বাড়ি ফেরার পথে আমি আনন্দ অনুভব করি এবং আমার মনে হয়, আমি পরের দিনটাও ভালো করে সামলে নেব।”—এলিজা।

তুমি কি জান? সারা বিশ্বে যিহোবার সাক্ষিদের ১,২০,০০০-রেরও বেশি মণ্ডলী রয়েছে আর এই মণ্ডলীগুলো ৬০,০০০-রেরও বেশি জায়গায় সভা করে থাকে। যেহেতু কিংডম হলের সভায় আসা ব্যক্তিদের সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে, সেইজন্য প্রতি বছর গড়ে প্রায় ১,৫০০টা কিংডম হল নির্মাণ করা হয়। *

^ অনু. 20 কোন কোন জায়গায় সভা অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে, তা জানার জন্য “যিহোবার সাক্ষিদের মণ্ডলীর বিভিন্ন সভা” পেজে গিয়ে “আপনার কাছাকাছি কোনো স্থান খুঁজুন” লিংকে ক্লিক করুন।