সরাসরি বিষয়বস্তুতে যান

সরাসরি দ্বিতীয় মেনুতে যান

সরাসরি বিষয়সূচিতে যান

যিহোবার সাক্ষিরা

বাংলা

আপনার পরিবার সুখী হতে পারে

 খণ্ড ৩

যেভাবে সমস্যার সমাধান করা যায়

যেভাবে সমস্যার সমাধান করা যায়

“পরস্পর একাগ্রভাবে প্রেম কর; কেননা ‘প্রেম পাপরাশি আচ্ছাদন করে।’”—১ পিতর ৪:৮

আপনি এবং আপনার সাথি যখন একত্রে জীবন শুরু করবেন, তখন বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেবে। এগুলো হয়তো আপনাদের চিন্তাধারা, অনুভূতি এবং জীবনধারার মধ্যে পার্থক্যের কারণে দেখা দিতে পারে। কিংবা সমস্যা বিয়ের বাইরে থেকে এবং অপ্রত্যাশিত ঘটনাগুলো থেকে আসতে পারে।

সাধারণত আমরা সমস্যা উপেক্ষা করতে চাই কিন্তু বাইবেল আমাদের উপদেশ দেয় যেন আমরা সমস্যার সঙ্গে মোকাবিলা করি। (মথি ৫:২৩, ২৪) বাইবেলের নীতিগুলো কাজে লাগানোর মাধ্যমে আপনি আপনার সমস্যাগুলো সর্বোত্তম উপায়ে সমাধান করতে পারবেন।

 ১ সমস্যা নিয়ে আলোচনা করুন

বাইবেল যা বলে: “কথা কহিবার কাল” আছে। (উপদেশক ৩:১, ৭) আপনার সমস্যা নিয়ে কথা বলার জন্য সময় করে নিন। সেই বিষয়ে আপনি কেমন বোধ করেন এবং কী চিন্তা করেন, তা আপনার সাথিকে খোলাখুলিভাবে জানান। সর্বদা আপনার সাথির সঙ্গে ‘সত্য আলাপ করুন’ বা তাকে সত্য বিষয়টা জানান। (ইফিষীয় ৪:২৫) এমনকী প্রচণ্ড রেগে গেলেও, ঝগড়া করার প্রবণতাকে প্রতিরোধ করুন। শান্তভাবে উত্তর দেওয়া হলে এক সাধারণ আলোচনা লড়াইয়ের দিকে মোড় নেবে না।—হিতোপদেশ ১৫:৪; ২৬:২০.

এমনকী আপনি যদি একমত না-ও হন, তবুও অনুগ্রহ দেখান বা সদয়ভাব বজায় রাখুন এবং আপনার সাথিকে কখনো প্রেম ও সম্মান দেখাতে ভুলবেন না। (কলসীয় ৪:৬) যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সমস্যা মিটমাট করার চেষ্টা করুন এবং কথা বলা বন্ধ করবেন না।—ইফিষীয় ৪:২৬.

আপনি যা করতে পারেন:

  • সমস্যাটা নিয়ে আলোচনা করার জন্য উপযুক্ত সময় ঠিক করুন

  • যখন আপনার শোনার সময় আসে, তখন কথার মাঝখানে বাধা দেওয়ার প্রবণতা প্রতিরোধ করুন। আপনাকেও কথা বলার সুযোগ দেওয়া হবে

 ২ মনোযোগ দিয়ে শুনুন এবং বোঝার চেষ্টা করুন

বাইবেল যা বলে: “পরস্পর স্নেহশীল হও; সমাদরে এক জন অন্যকে শ্রেষ্ঠ জ্ঞান কর।” (রোমীয় ১২:১০) আপনি কীভাবে শোনেন, তা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। সহানুভূতি বা ‘পরদুঃখে দুঃখিত ও নম্র’ মনোভাব দেখিয়ে আপনার সাথির দৃষ্টিভঙ্গি বোঝার চেষ্টা করুন। (১ পিতর ৩:৮; যাকোব ১:১৯) কেবল শোনার ভান করবেন না। যদি সম্ভব হয়, তাহলে আপনার হাতের কাজ বাদ দিয়ে আপনার সাথির প্রতি পূর্ণ মনোযোগ দিন নতুবা তাকে জিজ্ঞেস করুন যে, বিষয়টা নিয়ে পরে আলোচনা করা যায় কি না। আপনার বিবাহসাথিকে আপনি যদি বিরোধী বলে মনে না করে বরং আপনারই টিমের এক সদস্য বলে মনে করেন, তাহলে ‘সত্বর বিরক্ত হইবেন না।’—উপদেশক ৭:৯.

আপনি যা করতে পারেন:

  • খোলা মনে শুনুন, এমনকী যা বলা হচ্ছে, তা শুনতে যদি আপনার কাছে বিরক্তিকরও লাগে

  • কথাগুলোর পিছনে আসল বক্তব্য কী, তা বোঝার চেষ্টা করুন। আপনার সাথির দেহভঙ্গি এবং আওয়াজ লক্ষ করুন

৩ সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কাজ করুন

বাইবেল যা বলে: “সমস্ত পরিশ্রমেই সংস্থান হয়, কিন্তু ওষ্ঠের বাচালতায় কেবল অভাব ঘটে।” (হিতোপদেশ ১৪:২৩) আপনারা দু-জনে একমত হয়ে কোনো উত্তম সমাধানে পৌঁছানোই যথেষ্ট নয়। আপনারা যে-সিদ্ধান্ত নেন, সেই অনুযায়ী কাজ করাও প্রয়োজন। এর জন্য হয়তো কঠোর পরিশ্রম এবং যথেষ্ট প্রচেষ্টা প্রয়োজন কিন্তু তা সার্থক হবে। (হিতোপদেশ ১০:৪) আপনারা যদি একটা টিম হিসেবে একত্রে কাজ করেন, তাহলে আপনাদের কঠোর পরিশ্রমের জন্য “সুফল” লাভ করবেন।—উপদেশক ৪:৯.

আপনি যা করতে পারেন:

  • সমস্যা সমাধান করার জন্য আপনারা দু-জনে ব্যক্তিগতভাবে কোন কোন ব্যবহারিক পদক্ষেপ নেবেন, তা নির্ধারণ করুন

  • সময়ে সময়ে আপনাদের উন্নতি পরীক্ষা করে দেখুন