সরাসরি বিষয়বস্তুতে যান

সরাসরি দ্বিতীয় মেনুতে যান

সরাসরি বিষয়সূচিতে যান

যিহোবার সাক্ষিরা

বাংলা

ঈশ্বরের কথা শুনুন এবং চিরকাল বেঁচে থাকুন

 খণ্ড ৫

মহাপ্লাবন—কারা ঈশ্বরের কথা শুনেছিল? কারা শোনেনি?

মহাপ্লাবন—কারা ঈশ্বরের কথা শুনেছিল? কারা শোনেনি?

নোহের সময়ে অধিকাংশ লোকই যা মন্দ, তা-ই করেছিল। আদিপুস্তক ৬:৫

আদম ও হবার সন্তান হয়েছিল আর পৃথিবীতে লোকেদের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছিল। পরে, কিছু স্বর্গদূত শয়তানের সঙ্গে বিদ্রোহে যোগ দিয়েছিল।

তারা পৃথিবীতে এসে মানুষের দেহ ধারণ করেছিল যাতে তারা স্ত্রীলোকদেরকে বিয়ে করতে পারে। সেই স্ত্রীলোকেরা অতিমানবীয় পুত্রদের জন্ম দিয়েছিল, যারা হিংস্র ও শক্তিশালী ছিল।

জগৎ সেই লোকেদের দ্বারা পূর্ণ হয়ে গিয়েছিল, যারা বিভিন্ন মন্দ কাজ করত। বাইবেল বলে: “পৃথিবীতে মনুষ্যের দুষ্টতা বড়, এবং তাহার অন্তঃকরণের চিন্তার সমস্ত কল্পনা নিরন্তর কেবল মন্দ।”

 নোহ ঈশ্বরের কথা শুনেছিলেন ও একটা জাহাজ নির্মাণ করেছিলেন। আদিপুস্তক ৬:১৩, ১৪, ১৮, ১৯, ২২

নোহ একজন ভালো মানুষ ছিলেন। যিহোবা নোহকে বলেছিলেন যে, তিনি এক মহাপ্লাবন দ্বারা দুষ্ট লোকেদেরকে ধ্বংস করতে যাচ্ছেন।

এ ছাড়া, ঈশ্বর নোহকে একটা বিরাট নৌকাও নির্মাণ করতে বলেছিলেন, যেটাকে জাহাজ বলা হয় আর সেটার মধ্যে তার পরিবার ও সব ধরনের পশুপাখি নিতে বলেছিলেন।

নোহ আসন্ন জলপ্লাবন সম্বন্ধে লোকেদেরকে সতর্ক করেছিলেন কিন্তু তারা শোনেনি। কেউ কেউ নোহকে নিয়ে হাসি-ঠাট্টা করেছিল; অন্যেরা তাকে ঘৃণা করেছিল।

জাহাজ নির্মাণ শেষ হলে নোহ পশুপাখিকে জাহাজের ভিতরে নিয়ে এসেছিলেন।

আরও জানুন

ঈশ্বরের কাছ থেকে সুসমাচার!

কেন ঈশ্বর মন্দতা ও দুঃখকষ্ট থাকতে দিয়েছেন?

কীভাবে মন্দতা শুরু হয়েছিল আর কেন ঈশ্বর এখনও পর্যন্ত তা থাকতে দিয়েছেন? দুঃখকষ্ট কি কখনো শেষ হবে?