সরাসরি বিষয়বস্তুতে যান

সরাসরি দ্বিতীয় মেনুতে যান

সরাসরি বিষয়সূচিতে যান

যিহোবার সাক্ষিরা

বাংলা

আজকে কারা যিহোবার ইচ্ছা পালন করছে?

 পাঠ ২৩

কীভাবে আমাদের সাহিত্যাদি লেখা ও অনুবাদ করা হয়?

কীভাবে আমাদের সাহিত্যাদি লেখা ও অনুবাদ করা হয়?

রাইটিং ডিপার্টমেন্ট, যুক্তরাষ্ট্র

দক্ষিণ কোরিয়া

আর্মেনিয়া

বুরুন্ডি

শ্রীলঙ্কা

‘প্রত্যেক জাতি ও বংশ ও ভাষা ও প্রজাবৃন্দের’ কাছে “সুসমাচার” ঘোষণা করার জন্য আমাদের সর্বোত্তমটুকু করতে আমরা প্রায় ৭০০-টা ভাষায় সাহিত্য ছাপিয়ে থাকি। (প্রকাশিত বাক্য ১৪:৬) কীভাবে আমরা এই কঠিন কাজ সম্পাদন করে থাকি? আমরা এক আন্তর্জাতিক লিখন বিভাগ এবং প্রায় ৩,৩০০ জন অনুবাদক, যারা সবাই যিহোবার সাক্ষি, তাদের সাহায্যে এটা করে থাকি।

মূল পাঠ্যাংশ ইংরেজিতে প্রস্তুত করা হয়। পরিচালকগোষ্ঠী আমাদের বিশ্ব প্রধান কার্যালয়ে অবস্থিত রাইটিং ডিপার্টমেন্ট-এর (লিখন সংক্রান্ত বিভাগ) কাজ দেখাশোনা করে। এই বিভাগ, যে-লেখকেরা প্রধান কার্যালয়ে এবং নির্দিষ্ট কয়েকটা শাখা অফিসে কাজ করে তাদের কার্যভারের মধ্যে সমন্বয় সাধন করে। লিখন বিভাগের ব্যক্তিরা বিভিন্ন পটভূমির হওয়ায়, এটা আমাদেরকে সেই সমস্ত বিষয় নিয়ে লেখার সুযোগ করে দেয়, যেগুলো বিভিন্ন সংস্কৃতির লোকেদের ওপর প্রভাব ফেলে, যাতে আমাদের প্রকাশনাগুলো অনেক জাতির লোকের কাছে আকৃষ্টকর হয়ে ওঠে।

পাঠ্যাংশ বিভিন্ন অনুবাদকের কাছে পাঠানো হয়। লিখিত বিষয়বস্তু সম্পাদিত ও অনুমোদিত হওয়ার পর, এটি ইলেকট্রনিকভাবে পৃথিবীব্যাপী বিভিন্ন অনুবাদক দলের কাছে পাঠানো হয়, যারা পাঠ্যাংশটি অনুবাদ করে, চেকিং করে ও প্রুফ-রিডিং করে। তারা “সত্যের [“নির্ভরযোগ্য,” ইজি-টু-রিড ভারসন] বাক্য” বাছাই করার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করে, যেটি ইংরেজির সম্পূর্ণ অর্থকে তাদের নিজ নিজ ভাষায় তুলে ধরবে।—উপদেশক ১২:১০.

কম্পিউটার কাজকে ত্বরান্বিত করে। কম্পিউটার মনুষ্য লেখক ও অনুবাদকদের জায়গা নিতে পারে না। তবে, কম্পিউটারের মাধ্যমে বিভিন্ন অভিধান, অনুবাদকদের সাহায্যার্থে বিভিন্ন প্রোগ্রাম, গবেষণা করার বিভিন্ন বিষয়বস্তু ব্যবহার করার দ্বারা তাদের কাজকে আরও দ্রুত করা যেতে পারে। যিহোবার সাক্ষিরা একটা মাল্টিল্যাঙ্গুয়েজ ইলেকট্রনিক পাবলিশিং সিস্টেম (মেপস্‌) তৈরি করেছে, যেটার মাধ্যমে পাঠ্যাংশকে শত শত ভাষায় কম্পিউটারে টাইপ করা, সেগুলোর সঙ্গে বিভিন্ন ছবি যুক্ত করা এবং ছাপানোর জন্য কম্পোজ করা যেতে পারে।

কেন আমরা এই সমস্ত প্রচেষ্টা করে থাকি, এমনকী সেই ভাষাগুলোর জন্যও যেগুলো মাত্র কয়েক হাজার লোক বলে থাকে? কারণ যিহোবার ইচ্ছা হল যে, “যেন সমুদয় মনুষ্য পরিত্রাণ পায়, ও সত্যের তত্ত্বজ্ঞান পর্য্যন্ত পঁহুছিতে পারে।”—১ তীমথিয় ২:৩, ৪.

  • কীভাবে আমাদের প্রকাশনাগুলো লেখা হয়ে থাকে?

  • কেন আমরা এত এত ভাষায় আমাদের সাহিত্যাদি অনুবাদ করে থাকি?