সরাসরি বিষয়বস্তুতে যান

সরাসরি দ্বিতীয় মেনুতে যান

সরাসরি বিষয়সূচিতে যান

যিহোবার সাক্ষিরা

বাংলা

আজকে কারা যিহোবার ইচ্ছা পালন করছে?

 পাঠ ১৪

অগ্রগামীদের জন্য কোন কোন স্কুলের ব্যবস্থা রয়েছে?

অগ্রগামীদের জন্য কোন কোন স্কুলের ব্যবস্থা রয়েছে?

যুক্তরাষ্ট্র

নিউ ইয়র্কের প্যাটারসনে গিলিয়েড স্কুল

পানামা

ঈশতান্ত্রিক শিক্ষা দীর্ঘদিন ধরেই যিহোবার সাক্ষিদের এক শনাক্তকারী চিহ্ন। যারা রাজ্যের প্রচার কাজে পূর্ণসময় ব্যয় করেন, তাদের জন্য বিশেষ স্কুলের ব্যবস্থা করা হয়েছে, যাতে তারা ‘তাহাদের পরিচর্য্যা সম্পন্ন করিতে’ পারেন।—২ তীমথিয় ৪:৫.

অগ্রগামী পরিচর্যা বিদ্যালয়। একজন নিয়মিত অগ্রগামী, তার পূর্ণসময়ের পরিচর্যার প্রথম বছরের শেষে ছয় দিনব্যাপী একটা স্কুলে যোগ দেন, যা হয়তো কাছাকাছি কোনো কিংডম হলে অনুষ্ঠিত হয়। এই স্কুলের উদ্দেশ্য হল, সেই অগ্রগামীকে যিহোবার নিকটবর্তী হওয়ার, পরিচর্যার সমস্ত ক্ষেত্রে আরও কার্যকারী হয়ে ওঠার এবং বিশ্বস্ত সেবা চালিয়ে যাওয়ার জন্য সাহায্য করা।

রাজ্যের সুসমাচার প্রচারকদের জন্য স্কুল। দু-মাসব্যাপী এই স্কুলের উদ্দেশ্য হল সেই অভিজ্ঞ অগ্রগামীদের প্রশিক্ষিত করা, যারা যেখানে প্রয়োজন সেখানে সেবা করার জন্য নিজেদের এলাকা ছেড়ে অন্য এলাকায় যাওয়ার জন্য ইচ্ছুক। এক অর্থে তারা বলেন, “এই আমি, আমাকে পাঠাও।” আর তা করার দ্বারা তারা পৃথিবীর সবচেয়ে মহান সুসমাচার প্রচারক যিশু খ্রিস্টকে অনুকরণ করেন। (যিশাইয় ৬:৮; যোহন ৭:২৯) বাড়ি থেকে দূরে থাকার অন্তর্ভুক্ত হতে পারে, জীবনকে আরও সাদাসিধে করা। নতুন এলাকার সংস্কৃতি, আবহাওয়া এবং খাওয়া-দাওয়া হয়তো একেবারে আলাদা হতে পারে। এর জন্য হয়তো একটা নতুন ভাষা শেখারও প্রয়োজন হতে পারে। এই স্কুলে ২৩ থেকে ৬৫ বছর বয়সি অবিবাহিত ভাই ও বোন এবং বিবাহিত দম্পতিরা যোগ দিতে পারেন। এই স্কুল তাদেরকে এমন আধ্যাত্মিক গুণাবলি গড়ে তুলতে সাহায্য করে, যা তাদের কার্যভার সম্পন্ন করার জন্য প্রয়োজন। এ ছাড়া, এটা তাদের এমন দক্ষতাগুলো গড়ে তুলতে সাহায্য করে, যেগুলো তাদের কে যিহোবা ও তাঁর সংগঠনের কাছ থেকে পাওয়া দায়িত্বগুলো পূর্ণরূপে পালন করতে সমর্থ করে।

ওয়াচটাওয়ার বাইবেল স্কুল অভ্‌ গিলিয়েড। ইব্রীয় ভাষায় “গিলিয়েড” শব্দটার অর্থ হল, “সাক্ষি-রাশি।” ১৯৪৩ সালে এই স্কুল প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর থেকে ৮,০০০-এরও বেশি গিলিয়েড গ্র্যাজুয়েটকে মিশনারি হিসেবে পাঠানো হয়েছে, যেন তারা আরও সফলভাবে “পৃথিবীর সীমা পর্য্যন্ত” সাক্ষ্যদান করতে পারেন। (প্রেরিত ১৩:৪৭) গিলিয়েড গ্র্যাজুয়েটরা যখন প্রথম বার পেরুতে গিয়েছিলেন, তখন সেই দেশে কোনো মণ্ডলী ছিল না। এখন সেখানে ১,০০০-এরও বেশি মণ্ডলী রয়েছে। আমাদের মিশনারিরা যখন জাপানে প্রথম সেবা করতে শুরু করেছিলেন, তখন সেখানে দশ জনেরও কম সাক্ষি ছিল। এখন সেখানে ২,০০,০০০-এরও বেশি সাক্ষি রয়েছে। পাঁচ মাসব্যাপী এই গিলিয়েড কোর্সে ঈশ্বরের বাক্য পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে অধ্যয়ন করানো হয়। যারা বিশেষ অগ্রগামী অথবা ক্ষেত্রের মিশনারি হিসেবে সেবা করছে এবং যারা শাখা অফিসে রয়েছে অথবা সীমার কাজ করছে, তাদেরকে ব্যাপক প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য এই স্কুলে আমন্ত্রণ জানানো হয়, যাতে তারা বিশ্বব্যাপী কাজের জন্য আরও সুস্থির ও শক্তিশালী হতে পারেন।

  •  অগ্রগামী পরিচর্যা বিদ্যালয়-এর উদ্দেশ্য কী?

  •  রাজ্যের সুসমাচার প্রচারকদের জন্য স্কুল-এ কারা অংশ নিতে পারে?