সরাসরি বিষয়বস্তুতে যান

সরাসরি বিষয়সূচিতে যান

যিহোবার সাক্ষিরা

Select language বাংলা

 খণ্ড ১০

শলোমন বিজ্ঞতার সঙ্গে শাসন করেন

শলোমন বিজ্ঞতার সঙ্গে শাসন করেন

যিহোবা রাজা শলোমনকে প্রজ্ঞার চিত্ত দান করেন; শলোমনের শাসনকালে ইস্রায়েলীয়রা অতুলনীয় শান্তি ও সমৃদ্ধি উপভোগ করে

পুরো একটা জাতি ও এর শাসক যদি যিহোবাকে তাদের সার্বভৌম হিসেবে অনুসরণ করত ও তাঁর আইনগুলো পালন করত, তাহলে জীবন কেমন হতো? এই প্রশ্নের উত্তর, রাজা শলোমনের ৪০ বছরের রাজত্বকালে প্রদর্শিত হয়েছিল।

দায়ূদ মারা যাওয়ার আগে, তিনি তার উত্তরাধিকারী হিসেবে তার ছেলে শলোমনকে নিযুক্ত করেছিলেন। একটা স্বপ্নের মধ্যে ঈশ্বর শলোমনকে কিছু চাওয়ার জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। শলোমন লোকেদের ন্যায্যভাবে ও বিজ্ঞতার সঙ্গে বিচার করার জন্য প্রজ্ঞা এবং জ্ঞান চেয়েছিলেন। যিহোবা খুশি হয়েছিলেন এবং শলোমনকে এক বিজ্ঞ ও বিবেচক হৃদয় প্রদান করেছিলেন। এ ছাড়া, যিহোবা তাকে ঐশ্বর্য, গৌরব এবং দীর্ঘায়ু দেওয়ার প্রতিজ্ঞা করেছিলেন, যদি তিনি বাধ্য থাকেন।

শলোমন তার বিজ্ঞ বিচারের জন্য বিখ্যাত হয়ে উঠেছিলেন। একটা ঘটনায়, দুজন মহিলা একটি পুত্রসন্তানকে নিয়ে ঝগড়া করেছিল, প্রত্যেকেই নিজেকে সেই সন্তানের মা বলে দাবি করেছিল। শলোমন সেই বাচ্চাকে কেটে দু-ভাগ করে প্রত্যেক মহিলাকে অর্ধেক অর্ধেক দিতে আদেশ দিয়েছিলেন। একজন মহিলা তাতে রাজি হয়েছিলেন কিন্তু আসল মা সঙ্গেসঙ্গে বাচ্চাটিকে অপর মহিলার কাছে দিয়ে দেওয়ার জন্য মিনতি করেছিলেন। শলোমন তখন স্পষ্টতই দেখতে পেয়েছিলেন যে, সমবেদনাপূর্ণ মহিলাটিই হলেন আসল মা আর ছেলেটি তাকে দিয়ে দেওয়া হয়েছিল। শীঘ্র, সমস্ত ইস্রায়েল এই বিচার সম্বন্ধে শুনেছিল এবং লোকেরা বুঝতে পেরেছিল যে, শলোমনের মধ্যে ঈশ্বরীয় প্রজ্ঞা রয়েছে।

শলোমনের শ্রেষ্ঠ কৃতিত্বগুলোর মধ্যে একটা ছিল যিহোবার মন্দির নির্মাণ—যিরূশালেমে এক চমৎকার কাঠামো, যেটি ইস্রায়েলে উপাসনার এক কেন্দ্র হিসেবে কাজ করবে। মন্দির উদ্‌বোধনের সময় শলোমন প্রার্থনা করেছিলেন: “দেখ, স্বর্গ ও স্বর্গের স্ব তোমাকে ধারণ করিতে পারে না, তবে আমার নির্ম্মিত এই গৃহ কি পারিবে?”—১ রাজাবলি ৮:২৭.

শলোমনের সুনাম অন্যান্য দেশে, এমনকী আরবের শিবা পর্যন্ত পৌঁছে গিয়েছিল। শিবার রানি শলোমনের গৌরব ও ঐশ্বর্য দেখতে এবং তার প্রজ্ঞার গভীরতা পরীক্ষা করতে এসেছিলেন। শলোমনের প্রজ্ঞা এবং ইস্রায়েলের সমৃদ্ধি দেখে রানি এতটাই অভিভূত হয়ে গিয়েছিলেন যে, তিনি এইরকম একজন বিজ্ঞ রাজাকে সিংহাসনে অধিষ্ঠিত করার জন্য যিহোবার প্রশংসা করেছিলেন। বস্তুতপক্ষে, প্রাচীন ইস্রায়েলের ইতিহাসে শলোমনের শাসনকাল যিহোবার আশীর্বাদে সবচেয়ে সমৃদ্ধ ও শান্তিপূর্ণ ছিল।

দুঃখের বিষয় যে, শলোমন যিহোবার প্রজ্ঞার সঙ্গে মিল রেখে কাজ করে চলতে ব্যর্থ হয়েছিলেন। ঈশ্বরের আজ্ঞা উপেক্ষা করে তিনি শত শত মহিলাকে বিয়ে করেছিলেন, যাদের মধ্যে অনেকে বিজাতীয় দেবতাদের উপাসনা করত। ধীরে ধীরে তার স্ত্রীরা তার হৃদয়কে যিহোবার কাছ থেকে দূরে সরিয়ে নিয়ে গিয়ে প্রতিমার উপাসনার প্রতি পরিচালিত করেছিল। যিহোবা শলোমনকে বলেছিলেন যে, তার কাছ থেকে রাজ্য চিরে ফেলা হবে। ঈশ্বর বলেছিলেন, শলোমনের বাবা দায়ূদের কাছে তিনি যে-প্রতিজ্ঞা করেছিলেন, সেটার কারণে তার বংশে কেবল একটা অংশ থাকবে। শলোমনের আনুগত্যহীনতা সত্ত্বেও, যিহোবা দায়ূদের সঙ্গে করা তাঁর রাজ্যের চুক্তির প্রতি অনুগত ছিলেন।

১ রাজাবলি ১ থেকে ১১ অধ্যায়; ২ বংশাবলি ১ থেকে ৯ অধ্যায়; দ্বিতীয় বিবরণ ১৭:১৭ পদের ওপর ভিত্তি করে।