সরাসরি বিষয়বস্তুতে যান

সরাসরি দ্বিতীয় মেনুতে যান

সরাসরি বিষয়সূচিতে যান

যিহোবার সাক্ষিরা

বাংলা

বাইবেল—এই বইয়ে কোন বার্তা রয়েছে?

 খণ্ড ২৪

পৌল মণ্ডলীগুলোর উদ্দেশে চিঠি লেখেন

পৌল মণ্ডলীগুলোর উদ্দেশে চিঠি লেখেন

পৌলের চিঠিগুলো খ্রিস্টীয় সংগঠনকে শক্তিশালী করে

ঈশ্বরের উদ্দেশ্যের পরিপূর্ণতায় নবপ্রতিষ্ঠিত খ্রিস্টীয় মণ্ডলীর এক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা থাকবে। কিন্তু, প্রথম শতাব্দীর খ্রিস্টানরা খুব শীঘ্র আক্রমণের শিকার হয়েছিল। মণ্ডলীর বাইরে থেকে আসা তাড়নার ও মণ্ডলীর ভিতরে আরও সূক্ষ্ম বিপদগুলোর মুখোমুখি হলে তারা কি ঈশ্বরের প্রতি তাদের নীতিনিষ্ঠা বজায় রাখবে? খ্রিস্টান গ্রিক শাস্ত্রে ২১টি চিঠি রয়েছে, যেগুলো প্রয়োজনীয় পরামর্শ ও উৎসাহ প্রদান করে।

এই চিঠিগুলোর মধ্যে চোদ্দোটি—রোমীয় থেকে ইব্রীয় পর্যন্ত—প্রেরিত পৌল লিখেছিলেন। এইসমস্ত চিঠির নামকরণ করা হয়েছে তাদের নামে, যাদের উদ্দেশে সেগুলো লেখা হয়েছিল—তা সেটা ব্যক্তি বিশেষের উদ্দেশে হোক অথবা কোনো নির্দিষ্ট মণ্ডলীর সদস্যদের উদ্দেশে হোক। পৌলের চিঠিগুলোতে যে-বিষয়গুলো রয়েছে, সেগুলোর কয়েকটা বিবেচনা করুন।

নৈতিকতা ও আচরণ সম্বন্ধে উপদেশ। যারা বেশ্যাগমন, পারদারিকতা ও অন্যান্য গুরুতর পাপ করে, তারা “ঈশ্বরের রাজ্যে অধিকার পাইবে না।” (গালাতীয় ৫:১৯-২১; ১ করিন্থীয় ৬:৯-১১) যে-জাতিরই হোক না কেন, ঈশ্বরের উপাসকদের একতাবদ্ধ হতে হবে। (রোমীয় ২:১১; ইফিষীয় ৪:১-৬) সহবিশ্বাসীদের প্রয়োজনের সময়ে সাহায্য করার জন্য তাদের নিজেদেরকে আনন্দপূর্বক বিলিয়ে দেওয়া উচিত। (২ করিন্থীয় ৯:৭) “অবিরত প্রার্থনা কর,” পৌল বলেন। বস্তুতপক্ষে, উপাসকদেরকে যিহোবার কাছে প্রার্থনায় তাদের হৃদয় উজার করে দেওয়ার জন্য উৎসাহিত করা হয়েছে। (১ থিষলনীকীয় ৫:১৭; ২ থিষলনীকীয় ৩:১; ফিলিপীয় ৪:৬, ৭) তাদের প্রার্থনা যাতে ঈশ্বর শোনেন, সেইজন্য তাদের অবশ্যই বিশ্বাস সহকারে তা করতে হবে।—ইব্রীয় ১১:৬.

কোন বিষয়টা পরিবারগুলোকে উন্নতি লাভ করতে সাহায্য করবে? স্বামীদের উচিত স্ত্রীদেরকে নিজ দেহের মতো প্রেম করা। স্ত্রীদের তাদের স্বামীদের প্রতি “ভয়, [“শ্রদ্ধা,” বাংলা ইজি-টু-রিড ভারসন]” থাকা উচিত। সন্তানদের তাদের বাবা-মার বাধ্য থাকা উচিত কারণ তা ঈশ্বরকে খুশি করে। বাবা-মাদের প্রেমপূর্ণভাবে, ঈশ্বরীয় নীতিগুলো ব্যবহার করে তাদের সন্তানদেরকে নির্দেশনা ও প্রশিক্ষণ দিতে হবে।—ইফিষীয় ৫:২২–৬:৪; কলসীয় ৩:১৮-২১.

ঈশ্বরের উদ্দেশ্য আরও স্পষ্ট করা হয়। মোশির ব্যবস্থার অনেক বিষয় খ্রিস্টের আগমনের আগে পর্যন্ত ইস্রায়েলীয়দের সুরক্ষা করেছিল ও নির্দেশনা দিয়েছিল। (গালাতীয় ৩:২৪) কিন্তু, ঈশ্বরকে উপাসনা করার জন্য খ্রিস্টানদের সেই ব্যবস্থা পালন করার প্রয়োজন নেই। ইব্রীয়দের—যিহুদি পটভূমির খ্রিস্টানদের—উদ্দেশে চিঠি লেখার সময়ে পৌল ব্যবস্থার অর্থ এবং ঈশ্বরের উদ্দেশ্য কীভাবে খ্রিস্টে পরিপূর্ণ হয়েছে, সেই বিষয় আরও স্পষ্ট করেছেন। পৌল ব্যাখ্যা করেছিলেন যে, সেই ব্যবস্থার অধীন অনেক বিষয়ের ভবিষ্যদ্‌বাণীমূলক গুরুত্ব ছিল। উদাহরণস্বরূপ,  পশু বলিদান করা যিশুর বলিদানমূলক মৃত্যুর পূর্বাভাস দিয়েছিল, যা পাপের প্রকৃত ক্ষমা প্রদান করবে। (ইব্রীয় ১০:১-৪) যিশুর মৃত্যুর মাধ্যমে ঈশ্বর সেই ব্যবস্থা চুক্তিকে বাতিল করেছিলেন কারণ সেটির আর প্রয়োজন ছিল না।—কলসীয় ২:১৩-১৭; ইব্রীয় ৮:১৩.

মণ্ডলীর উপযুক্ত সাংগঠনিক ব্যবস্থা সম্বন্ধে নির্দেশনা। যে-পুরুষরা মণ্ডলীতে দায়িত্বগুলো পরিচালনা করতে ইচ্ছুক, তাদের অবশ্যই উচ্চ নৈতিক মান বজায় রাখতে ও আধ্যাত্মিক যোগ্যতাগুলো পূরণ করতে হবে। (১ তীমথিয় ৩:১-১০, ১২, ১৩; তীত ১:৫-৯) যিহোবা ঈশ্বরের উপাসকদের একে অন্যকে উৎসাহিত করার জন্য সহবিশ্বাসীদের সঙ্গে নিয়মিতভাবে একত্রিত হওয়া উচিত। (ইব্রীয় ১০:২৪, ২৫) উপাসনার জন্য যে-সভাগুলো করা হয়, সেগুলো গঠনমূলক ও শিক্ষণীয় হওয়া উচিত।—১ করিন্থীয় ১৪:২৬, ৩১.

তীমথিয়ের উদ্দেশে লেখা তার দুটো চিঠির মধ্যে দ্বিতীয়টি লেখার সময় পৌল রোমে ফিরে গিয়েছিলেন; তিনি কারারুদ্ধ হয়েছিলেন, বিচারের জন্য অপেক্ষা করছিলেন। শুধুমাত্র সাহসী কয়েক জন তার সঙ্গে দেখা করার ঝুঁকি নিয়েছিল। পৌল জানতেন যে, তার হাতে অল্প সময় রয়েছে। “আমি উত্তম যুদ্ধে প্রাণপণ করিয়াছি,” তিনি বলেছিলেন। “নিরূপিত পথের শেষ পর্য্যন্ত দৌড়িয়াছি, বিশ্বাস রক্ষা করিয়াছি।” (২ তীমথিয় ৪:৭) সম্ভবত এর অল্প সময় পরেই পৌলকে তার বিশ্বাসের কারণে হত্যা করা হয়েছিল। কিন্তু, প্রেরিতের সেই চিঠিগুলো এখন পর্যন্ত ঈশ্বরের সত্য উপাসকদের নির্দেশনা প্রদান করে।

রোমীয়; ১ ও ২ করিন্থীয়; গালাতীয়; ইফিষীয়; ফিলিপীয়; কলসীয়; ১ ও ২ থিষলনীকীয়; ১ ও ২ তীমথিয়; তীত; ফিলীমন; ইব্রীয় বইয়ের ওপর ভিত্তি করে।