সরাসরি বিষয়বস্তুতে যান

সরাসরি দ্বিতীয় মেনুতে যান

সরাসরি বিষয়সূচিতে যান

যিহোবার সাক্ষিরা

বাংলা

প্রহরীদুর্গ  |  জুলাই ২০১৫

 বাইবেল জীবনকে পরিবর্তন করে

আমি জেনেছি যে, যিহোবা হলেন করুণাময় ও ক্ষমাবান

আমি জেনেছি যে, যিহোবা হলেন করুণাময় ও ক্ষমাবান
  • জন্ম: ১৯৫৪ সাল

  • দেশ: কানাডা

  • ইতিহাসে: আগে আমি প্রতারক ও জুয়াড়ি ছিলাম

আমার অতীত:

আমি মন্ট্রিল নামে একটা শহরের এক দরিদ্র এলাকায় বড়ো হই। আমার বয়স যখন ছ-মাস, তখন আমার বাবা মারা যান আর এর ফলে পুরো পরিবারের দায়িত্ব আসে মায়ের উপর। আমরা ছিলাম আট ভাই-বোন আর তাদের মধ্যে আমি হলাম সবার ছোটো।

বড়ো হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে, মাদকদ্রব্য, জুয়াখেলা, দৌরাত্ম্য এবং অপরাধীদের সঙ্গে মেলামেশা করা আমার নিত্যদিনের বিষয় হয়ে ওঠে। দশ বছর বয়সে আমি যৌনকর্মী এবং মহাজনদের জন্য ফাইফরমাশ খাটতাম। মিথ্যা বলা আমার অভ্যাস হয়ে দাঁড়ায় আর নিজের স্বার্থে লোকেদের ঠকাতে আমার অনেক ভালো লাগত। এটা আমার নেশা হয়ে ওঠে।

১৪ বছর বয়সে বিভিন্ন উপায়ে লোকেদের ঠকানোর ব্যাপারে আমি দক্ষ হয়ে উঠি। উদাহরণ স্বরূপ, আমি প্রচুর পরিমাণে গোল্ড-প্লেটেড ঘড়ি, ব্রেসলেট এবং আংটি কিনে সেগুলোতে ১৪ ক্যারেট গোল্ডের সিল দিতাম। এরপর সেগুলো রাস্তায় এবং শপিং মলের সামনে বিক্রি করতাম। এত সহজে যে টাকা আয় করা যায়, তা দেখে আমি নিজেই অবাক হয়ে যাই। এক বার, মাত্র এক দিনে আমি ১০,০০০ কানাডিয়ান ডলার আয় করি!

আমাকে ১৫ বছর বয়সে সংশোধনমূলক স্কুল থেকে বের করে দেওয়ার পর, আমার আর যাওয়ার কোনো জায়গা ছিল না। আমি কখনো রাস্তায়, কখনো পার্কে অথবা রাস্তার বন্ধুদের সঙ্গে তাদের বাড়িতে গিয়ে থাকতাম।

আমার প্রতারণামূলক কাজের জন্য প্রায়ই পুলিশ আমাকে ধরে জেরা করত। যেহেতু আমি চোরাইমাল বিক্রি করতাম না, তাই আমাকে কখনো জেলে যেতে হয়নি। তবে প্রতারণা, সরকারি অনুমতি ছাড়া ও সেইসঙ্গে নকল জিনিসপত্র বিক্রি করার কারণে আমাকে মোটা অঙ্কের জরিমানা দিতে হতো। আমি এমনকী মহাজনদের ভাড়াটে গুন্ডা হিসেবে লোকেদের কাছ থেকে টাকাও আদায় করতাম। এটা খুবই মারাত্মক ছিল আর মাঝে মাঝে আমি সঙ্গে বন্দুকও রাখতাম। কখনো কখনো আমি দুর্বৃত্ত দলের সঙ্গেও কাজ করতাম।

বাইবেল যেভাবে আমার জীবনকে পরিবর্তন করেছে:

আমার বয়স যখন ১৭ বছর, তখন আমি প্রথম বাইবেল সম্বন্ধে জানতে পারি। আমি যে-বান্ধবীর সঙ্গে একই ঘরে থাকতাম, সে যিহোবার সাক্ষিদের সঙ্গে বাইবেল অধ্যয়ন করতে শুরু করে। কিন্তু, বাইবেলে নৈতিকতা সম্বন্ধে যে-সমস্ত বিধি-নিষেধ ছিল, সেগুলো  পছন্দ করতাম না। তাই, তাকে ছেড়ে আমি আরেকজন মেয়ের সঙ্গে থাকতে শুরু করি, যার সঙ্গে আমি ডেটিং করছিলাম।

ঘটনার মোড় পালটে যায় সেই সময়, যখন আমার দ্বিতীয় বান্ধবীও সাক্ষিদের সঙ্গে বাইবেল অধ্যয়ন করতে শুরু করে। সে তার জীবনে পরিবর্তন করতে শুরু করে আর আমি যখন দেখি যে, সে আগের চেয়ে আরও বেশি কোমলতা ও ধৈর্য দেখানোর চেষ্টা করছে, তখন তা আমার হৃদয়কে নাড়া দেয়। একবার আমি যিহোবার সাক্ষিদের কিংডম হলে যাওয়ার জন্য রাজি হই। সেখানে যারা আমাকে অভ্যর্থনা জানিয়েছিল, তারা সবাই ছিল ভদ্র এবং সদয়। আমার জগৎ থেকে এই জগৎ কত আলাদাই-না ছিল! আমার পরিবারের লোকেরা কখনোই আমার প্রতি ভালোবাসা দেখায়নি; ছেলেবেলায় আমি সবসময় স্নেহভালোবাসা এবং যত্ন থেকে বঞ্চিত হয়েছি। যিহোবার সাক্ষিদের কাছ থেকে আমি ঠিক সেটাই পেয়েছিলাম, যেটার জন্য আমি আকুল আকাঙ্ক্ষী ছিলাম। যিহোবার সাক্ষিরা যখন আমাকে বাইবেল অধ্যয়ন করার প্রস্তাব দেয়, তখন আমি সঙ্গেসঙ্গে রাজি হয়ে যাই।

বাইবেল থেকে আমি যা শিখছিলাম, সম্ভবত সেটা আমার জীবন রক্ষা করেছে। জুয়াখেলার ফলে আমি ৫০,০০০-এরও বেশি কানাডিয়ান ডলার ঋণের দায়ে জড়িয়ে পড়ি আর তা শোধ করার জন্য আমার দু-জন বন্ধুর সঙ্গে ডাকাতি করার পরিকল্পনা করি। কিন্তু আমি খুশি যে, আমি আমার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করেছিলাম! আমার প্রাক্তন বন্ধুরা তাদের পরিকল্পনা মতোই ডাকাতি করতে যায়। তাদের মধ্যে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয় এবং আরেকজন ডাকাতি করার সময় তার প্রাণ হারায়।

বাইবেল অধ্যয়ন চালিয়ে যাওয়ার সময় আমি বুঝতে পারি, আমাকে অনেক পরিবর্তন করতে হবে। উদাহরণ স্বরূপ, বাইবেলের ১ করিন্থীয় ৬:১০ পদ থেকে আমি জানতে পারি: “যাহারা . . . চোর কি লোভী কি মাতাল কি কটুভাষী কি পরধনগ্রাহী, তাহারা ঈশ্বরের রাজ্যে অধিকার পাইবে না।” এই পদ পড়ার পর আমার চোখে জল এসে যায়, কারণ আমি বুঝতে পারি, আমার অবস্থা কতটা শোচনীয়। আমি উপলব্ধি করি, আমার জীবনকে রূপান্তর বা পুরোপুরি পরিবর্তন করতে হবে। (রোমীয় ১২:২) আমি হিংস্র স্বভাবের ও উগ্র মেজাজের ছিলাম আর আমি সারা জীবন ধরে মিথ্যা কথাই বলেছি।

কিন্তু, বাইবেল অধ্যয়ন করে আমি এও জেনেছি যে, যিহোবা হলেন করুণাময় এবং ক্ষমাবান। (যিশাইয় ১:১৮) আমি মনপ্রাণ উজাড় করে যিহোবার কাছে প্রার্থনা করি এবং বিনতি জানাই যেন আমি আমার আগের জীবনধারা থেকে মুক্ত হতে পারি। তাঁর সাহায্যে আমি ধীরে ধীরে আমার ব্যক্তিত্ব পরিবর্তন করতে সমর্থ হই। এই পরিবর্তনের একটা বড়ো পদক্ষেপ হিসেবে আমি এবং আমার বান্ধবী আমাদের বিয়েকে বৈধ করি।

আমি বাইবেলের নীতিগুলো কাজে লাগিয়েছি বলেই এখনও বেঁচে আছি

সেইসময় আমার বয়স ছিল ২৪ বছর আর ইতিমধ্যে আমাদের তিনটে সন্তান ছিল। এরপর আমাকে সৎভাবে রোজগার করার উপায় খুঁজতে হয়। আমি বেশি দূর লেখাপড়া করিনি এবং আমার হয়ে সুপারিশ করার মতো কেউ ছিল না। আবারও আমি আন্তরিকভাবে যিহোবার কাছে প্রার্থনা করি। এরপর আমি চাকরির খোঁজে বেরিয়ে পড়ি। আমি নিয়োগকর্তাদের বলি, আমি আমার জীবন পরিবর্তন করতে চাই আর সৎ পথে থেকে পরিশ্রম করতে চাই। কখনো কখনো আমি এও জানাই যে, আমি বাইবেল অধ্যয়ন করছি এবং একজন উত্তম নাগরিক হতে চাই। কোনো নিয়োগকর্তাই আমাকে নিতে চায়নি। অবশেষে, আরেকটা ইন্টারভিউতে আমি যখন আমার অতীতের ঘটনা খুলে বলি, তখন নিয়োগকর্তা বলেন: “আমি জানি না কেন, আমার মনে হচ্ছে, আপনাকে একটা সুযোগ দেওয়া উচিত।” আমি মনে করি, এটা ছিল আমার প্রার্থনার উত্তর। পরবর্তী সময়ে, আমি ও আমার স্ত্রী যিহোবার সাক্ষি হিসেবে বাপ্তিস্ম নিই।

আমি যেভাবে উপকৃত হয়েছি:

আমি বাইবেলের নীতিগুলো কাজে লাগিয়েছি বলেই এবং খ্রিস্টীয় উপায়ে জীবনযাপন করেছি বলেই এখনও বেঁচে আছি। বর্তমানে আমার নিজের এক সুন্দর পরিবার রয়েছে। যেহেতু যিহোবা আমাকে ক্ষমা করেছেন, তাই আমার এক শুদ্ধ বিবেক রয়েছে।

বিগত ১৪ বছর ধরে আমি লোকেদের বাইবেল থেকে শিখতে সাহায্য করছি আর সম্প্রতি আমার স্ত্রীও আমার সঙ্গে এই কাজ করছে। এর জন্য প্রতি মাসে গড়ে আমাদের প্রায় ৭০ ঘন্টা ব্যয় করতে হয়। ৩০ বছরেরও বেশি সময় ধরে আমি আমার ২২ জন সহকর্মীকে যিহোবার উপাসক হতে সাহায্য করেছি আর এতে আমি অনেক আনন্দিত। এখনও আমি শপিং মলে যাই, তবে আগেকার মতো লোকেদের সঙ্গে প্রতারণা করার জন্য নয়। আমি যখন সেখানে যাই, তখন প্রায়ই লোকেদেরকে আমার বিশ্বাস সম্বন্ধে জানাই। আমি তাদের কিছু দিতে চাই আর তা হল, ভবিষ্যতে এক নতুন জগতে বেঁচে থাকার আশা, যেখানে কোনো প্রতারক থাকবে না।—গীতসংহিতা ৩৭:১০, ১১. ▪ (w১৫-E ০৫/০১)

আরও জানুন

সজাগ হোন!

জুয়াখেলা সম্বন্ধে বাইবেল যা বলে

জুয়াখেলা কি নিছক মজা?