সরাসরি বিষয়বস্তুতে যান

সরাসরি দ্বিতীয় মেনুতে যান

সরাসরি বিষয়সূচিতে যান

যিহোবার সাক্ষিরা

বাংলা

প্রহরীদুর্গ (অধ্যয়ন সংস্করণ)  |  ডিসেম্বর ২০১৫

নতুন জগৎ অনুবাদ ইংরেজি পরিমার্জিত সংস্করণ ২০১৩

নতুন জগৎ অনুবাদ ইংরেজি পরিমার্জিত সংস্করণ ২০১৩

বিভিন্ন সময়ে, পবিত্র শাস্ত্রের নতুন জগৎ অনুবাদ (ইংরেজি) বাইবেল বেশ কয়েক বার পরিমার্জন করা হয়েছে, তবে ২০১৩ সালে সবচেয়ে ব্যাপক আকারে তা করা হয়েছে। উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, এই অনুবাদে আগের তুলনায় ইংরেজি শব্দ শতকরা ১০ ভাগ কম রয়েছে। বাইবেলের কিছু মূল অভিব্যক্তি পরিমার্জন করা হয়েছে। নির্দিষ্ট কিছু অধ্যায় কাব্যিক আকারে বিন্যাস করা হয়েছে এবং ধারণা স্পষ্ট করার জন্য পাদটীকা যুক্ত করা হয়েছে, যা আগের সংস্করণে ছিল না। এই প্রবন্ধে সমস্ত পরিবর্তন নিয়ে আলোচনা করা সম্ভব নয়, তবে আসুন আমরা কয়েকটা প্রধান রদবদল নিয়ে আলোচনা করি।

বাইবেলের কোন কোন মূল অভিব্যক্তি পরিবর্তন করা হয়েছে? আগের প্রবন্ধে যেমন উল্লেখ করা হয়েছে, “শিওল,” “হেডিজ” এবং “প্রাণ” এই শব্দগুলো পরিমার্জন করা হয়েছে। এগুলো ছাড়াও বেশ কিছু অভিব্যক্তি রদবদল করা হয়েছে।

উদাহরণ স্বরূপ, যিশুকে কীভাবে শাস্তি দেওয়া হয়েছিল, সেই বিষয়ে ভুল ধারণা এড়ানোর জন্য “বিদ্ধ করা হয়েছিল” শব্দগুলো পরিবর্তন করে “দণ্ডের উপর শাস্তি দেওয়া হয়েছিল” বা “দণ্ডের উপর বিদ্ধ করা হয়েছিল” হিসেবে অনুবাদ করা হয়েছে। (মথি ২০:১৯; ২৭:৩১) “লম্পটতা” শব্দ পরিবর্তন করে “নির্লজ্জ আচরণ” অনুবাদ করা হয়েছে, যা গ্রিক ভাষায় উদ্ধত মনোভাবকে প্রকাশ করে। আগে “দীর্ঘসহিষ্ণুতা” শব্দ ব্যবহার করা হতো আর এই শব্দটা ভুলভাবে দীর্ঘসময় ধরে কষ্টভোগ করার ধারণা দিতে পারত; এক্ষেত্রে “ধৈর্য” শব্দটা আরও সঠিক ধারণা প্রকাশ করে। “রঙ্গরস” শব্দের জায়গায় “উদ্দাম আমোদপ্রমোদ” অনুবাদ করা হয়েছে, যা এখন আরও ভালোভাবে বোঝা যায়। (গালা. ৫:১৯-২২) “প্রেমপূর্ণ-দয়া” শব্দের পরিবর্তে আরও সঠিকভাবে “অনুগত প্রেম” অনুবাদ করা হয়েছে। এই শব্দ বাইবেলের এমন একটা শব্দের অর্থ প্রকাশ করে, যেটাকে প্রায়ই “বিশ্বস্ততা” শব্দের সমার্থ হিসেবে ব্যবহার করা হয়।—গীত. ৩৬:৫; ৮৯:১.

কিছু অভিব্যক্তি অনুবাদ করার ক্ষেত্রে সবসময় একই শব্দ ব্যবহার করা হতো, কিন্তু এখন সেই শব্দগুলো প্রসঙ্গ বিবেচনা করে অনুবাদ করা হয়েছে। উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, ইব্রীয় শব্দ “ওহ্‌-লাম” আগে “অনাদিকাল” হিসেবে অনুবাদ করা হয়েছে, তবে এই শব্দের অর্থ “চিরকাল” হতে পারে। এই শব্দ ব্যবহার করার ফলে গীতসংহিতা ৯০:২ পদ এবং মীখা ৫:২ পদ কীভাবে প্রভাবিত হয়, তা তুলনা করুন।

যে-ইব্রীয় ও গ্রিক শব্দগুলোকে শাস্ত্রে প্রায়ই “বীজ” হিসেবে অনুবাদ করা হয়েছে, সেগুলো কৃষিকাজের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত বিষয়কে ও সেইসঙ্গে রূপক অর্থে “বংশধর” বোঝাতে পারে। নতুন জগৎ  অনুবাদ-এর আগের সংস্করণগুলোতে আদিপুস্তক ৩:১৫ পদ-সহ সমস্ত জায়গায় “বীজ” শব্দ ব্যবহার করা হয়েছে। কিন্তু, ইংরেজি ভাষায় “বংশধর” অর্থ প্রকাশ করার জন্য “বীজ” শব্দটা এখন আর প্রচলিত নয়। তাই, আদিপুস্তক ৩:১৫ পদ ও সম্পর্কযুক্ত অন্যান্য পদে “বংশধর” শব্দ ব্যবহার করা হয়েছে। (আদি. ২২:১৭, ১৮; প্রকা. ১২:১৭) অন্যান্য ক্ষেত্রে প্রসঙ্গ বিবেচনা করে অনুবাদ করা হয়েছে।—আদি. ১:১১; গীত. ২২:৩০; যিশা. ৫৭:৩.

কেন অনেক আক্ষরিক অনুবাদ রদবদল করা হয়েছে? ২০১৩ সালের পরিমার্জিত সংস্করণের পরিশিষ্ট ক১-এ বলা হয়েছে, “কোনো শব্দ অথবা বাক্যাংশের আক্ষরিক অনুবাদ যখন বিকৃত অথবা অস্পষ্ট অর্থ প্রকাশ করে,” তখন একটা উত্তম বাইবেল অনুবাদ “সেটার সঠিক অর্থ প্রকাশ” করবে। মূল ভাষার বাক্যালংকার যখন অন্যান্য ভাষায় একই অর্থ প্রকাশ করে, তখন সেগুলো আক্ষরিকভাবেই অনুবাদ করা হয়। এই পদ্ধতি অনুসরণ করে যখন প্রকাশিত বাক্য ২:২৩  পদে, “হৃদয়ের অনুসন্ধানকারী” অভিব্যক্তি অনুবাদ করা হয়েছে, তখন অনেক ভাষায় সেই শব্দের অর্থ বোঝা যায়। কিন্তু, সেই একই পদে “বৃক্কের অনুসন্ধানকারী” শব্দগুলো হয়তো সহজে বোঝা যায় না। তাই, “বৃক্ক” শব্দটা পরিবর্তন করে “অন্তরের চিন্তাভাবনা” শব্দগুলো দেওয়া হয়েছে আর এভাবে সঠিক অর্থ তুলে ধরা হয়েছে। একইভাবে, দ্বিতীয় বিবরণ ৩২:১৪ পদে “গমের বৃক্কের মেদ” আক্ষরিক বাক্যালংকারকে আরও স্পষ্টভাবে “সবচেয়ে উত্তম গম” হিসেবে অনুবাদ করা হয়েছে। একই কারণে, “আমি তো অচ্ছিন্নত্বক ওষ্ঠ” এই শব্দগুলোর অর্থ যে “আমার কথা তো জড়িয়ে যায়,” অধিকাংশ ভাষায় তা একেবারেই বোঝা যায় না।—যাত্রা. ৬:১২.

কেন “ইস্রায়েলের পুত্রগণ” ও “পিতৃহীন পুত্রগণ” অভিব্যক্তিগুলোকে এখন “ইস্রায়েলীয়” ও “পিতৃহীন সন্তান” হিসেবে অনুবাদ করা হয়েছে? ইব্রীয় ভাষায়, কোনো একটা বাক্যাংশ পুরুষের প্রতি প্রযোজ্য না কি নারীর প্রতি প্রযোজ্য, তা সাধারণত পুংলিঙ্গবাচক অথবা স্ত্রীলিঙ্গবাচক শব্দের সাহায্যে শনাক্ত করা হয়। কিন্তু, কিছু পুংলিঙ্গবাচক শব্দ পুরুষ ও নারী উভয়কেই বোঝাতে পারে। উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, কিছু শাস্ত্রপদের প্রসঙ্গ ইঙ্গিত দেয়, “ইস্রায়েলের পুত্রগণ” অভিব্যক্তিটা পুরুষ ও নারী উভয় ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য, তাই এই অভিব্যক্তি এখন “ইস্রায়েলীয়” হিসেবে অনুবাদ করা হয়েছে।—যাত্রা. ১:৭; ৩৫:২৯; ২ রাজা. ৮:১২.

একইভাবে, আদিপুস্তক ৩:১৬ পদে ইব্রীয় পুংলিঙ্গবাচক “পুত্রগণ” শব্দটাকে নতুন জগৎ অনুবাদ-এর আগের সংস্করণগুলোতে “সন্তান” হিসেবে অনুবাদ করা হয়েছিল। এখন যাত্রাপুস্তক ২২:২৪ পদেও সেই একই শব্দ অর্থাৎ “পুত্র” পরিবর্তন করে এভাবে দেওয়া হয়েছে: “তোমাদের সন্তানরা [ইব্রীয়, “পুত্ররা”] পিতৃহীন হবে।” এই নীতি অন্যান্য জায়গায় প্রয়োগ করে, “পিতৃহীন পুত্র” শব্দগুলো পরিবর্তন করে “পিতৃহীন সন্তান” বা “অনাথ” শব্দ দেওয়া হয়েছে। (দ্বিতীয়. ১০:১৮; ইয়োব ৬:২৭) এই অনুবাদ গ্রিক সেপ্টুয়াজিন্ট অনুবাদের মতো। এই কারণে উপদেশক ১২:১ পদে উল্লেখিত “তোমার পৌরুষের দিনগুলোতে” বাক্যাংশ পরিবর্তন করে “তোমার তারুণ্যের দিনগুলোতে” বাক্যাংশ দেওয়া হয়েছে।

কেন অনেক ইব্রীয় ক্রিয়া পদের অর্থ সহজ করা হয়েছে? দুটো মূল ইব্রীয় ক্রিয়া পদের একটা হল অসমাপিকা ক্রিয়া, যা কাজ করে চলার ইঙ্গিত দেয়, আরেকটা হল সমাপিকা ক্রিয়া, যেটা কাজ শেষ হওয়ার ইঙ্গিত দেয়। নতুন জগৎ অনুবাদ-এর অতীতের সংস্করণগুলোতে, কোনো কিছু যে ক্রমাগত বা বার বার করা হচ্ছে তা বোঝানোর জন্য, সবসময় ইব্রীয় অসমাপিকা ক্রিয়া পদ অনুবাদ করার সময় মূল ক্রিয়া পদের সঙ্গে একটা সহায়ক ক্রিয়া পদ যেমন, “করতে থাকা” অথবা “করে চলা” শব্দ যুক্ত করা হয়েছিল। * সমাপিকা ক্রিয়ার শেষ বোঝাতে জোরালো অভিব্যক্তিগুলো যেমন “নিশ্চিতভাবেই,” “অবশ্যই” এবং “সত্যিই” শব্দগুলো ব্যবহার করা হয়েছে।

২০১৩ সালের সংস্করণে এই ধরনের সহায়ক অভিব্যক্তিগুলো তখনই ব্যবহার করা হয়েছে, যখন অর্থ স্পষ্ট করার জন্য সেগুলোর প্রয়োজন হয়েছে। উদাহরণ স্বরূপ, ঈশ্বর বার বার “আলো হোক” বলেছিলেন,  এই বিষয়ের উপর জোর দেওয়ার কোনো প্রয়োজন নেই। তাই, এই সংস্করণে “বলেন” অসমাপিকা ক্রিয়া পদকে ক্রমাগত অর্থে অনুবাদ করা হয়নি। (আদি. ১:৩) কিন্তু, আদিপুস্তক ৩:৯ পদে যিহোবা নিশ্চিতভাবেই আদমের নাম ধরে বার বার ডেকেছিলেন আর তাই সেই পদে “ডাকতে থাকেন” শব্দগুলো অনুবাদ করে সেই বিষয়ের উপর জোর দেওয়া হয়েছে। সমস্ত দিক বিবেচনা করে, ক্রিয়া পদগুলো আরও সহজভাবে অনুবাদ করা হয়েছে আর এক্ষেত্রে ইব্রীয় ভাষার অসমাপিকা অথবা সমাপিকা ক্রিয়ার পরিবর্তে, বরং কাজের উপর মনোযোগ দেওয়া হয়েছে। এর আরেকটা উপকারিতা হচ্ছে, এটা ইব্রীয় ভাষার সংক্ষিপ্ত রূপ অনেকটা পুনরুদ্ধার করতে সাহায্য করেছে।

মূল ভাষায় যেভাবে কাব্যিক আকারে তুলে ধরা হয়েছিল তা বজায় রাখার  জন্য, এখন আরও বেশি অধ্যায় কাব্যিকভাবে বিন্যাস করা হয়েছে

কেন আরও বেশিসংখ্যক অধ্যায় কাব্যিকভাবে বিন্যাস করা হয়েছে? বাইবেলের অনেক অংশ মূল ভাষায় কবিতার আকারে লেখা হয়েছিল। আধুনিক ভাষায়, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই কবিতার বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, এতে ছন্দ থাকে। কিন্তু ইব্রীয় ভাষায়, কবিতার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য হল, সাদৃশ্য ও বৈসাদৃশ্য। ইব্রীয় কবিতায় শব্দগত ছন্দের দ্বারা নয় বরং যুক্তিসংগত উপায়ে চিন্তাভাবনা সাজানোর মাধ্যমে কবিতার ছন্দ রক্ষা করা হয়।

নতুন জগৎ অনুবাদ-এর আগের সংস্করণগুলোতে, ইয়োব ও গীতসংহিতা বই দুটো পঙ্‌ক্তির আকারে তুলে ধরা হয়েছিল আর এভাবে দেখানো হয়েছিল, এগুলো আসলে গান গাওয়ার অথবা আবৃত্তি করার উদ্দেশ্যে লেখা হয়েছে। এই বিন্যাস কাব্যিক বিষয়বস্তুর উপর জোর দেয় এবং বিষয়বস্তু স্মরণে রাখতে সাহায্য করে। ২০১৩  সালের সংস্করণে, হিতোপদেশ, পরমগীত এবং ভবিষ্যদ্‌বাণীমূলক বইগুলোর অনেক অধ্যায় যে কবিতার আকারে লেখা হয়েছিল, তা দেখানোর জন্য এবং সাদৃশ্য ও বৈসাদৃশ্যের উপর জোর দেওয়ার জন্য সেগুলোও পঙ্‌ক্তির আকারে তুলে ধরা হয়েছে। এর একটা উদাহরণ হল যিশাইয় ২৪:২ পদ, যেখানে প্রতিটা লাইনে একটা বৈসাদৃশ্য তুলে ধরা হয়েছে এবং ঈশ্বরের বিচার থেকে যে কেউই রেহাই পাবে না, সেই বিষয়ে জোর দেওয়ার জন্য একটা বাক্যের গঠন অনুযায়ী পরের বাক্য গঠন করা হয়েছে। এই বাক্যাংশগুলোকে কবিতার আকারে তুলে ধরায় তা পাঠককে এটা বুঝতে সাহায্য করে, বাইবেল লেখক এমনি এমনি পুনরাবৃত্তি করছেন না; বরং তিনি ঈশ্বরের বার্তার উপর জোর দেওয়ার  জন্য একটা পন্থা হিসেবে ভাষার কাব্যিক রূপ ব্যবহার করছেন।

ইব্রীয় ভাষায় গদ্য ও কবিতার মধ্যে পার্থক্য সবসময় স্পষ্টভাবে বোঝা না-ও যেতে পারে আর তাই বাইবেলের কোন কোন বাক্যাংশ কাব্যিকভাবে তুলে ধরতে হবে, সেই বিষয়ে বিভিন্ন বাইবেল অনুবাদে পার্থক্য রয়েছে। এই কারণে, কোন পদগুলোকে কবিতার আকারে ছাপানো হবে তা নির্ধারণ করার জন্য অনুবাদকদের বিচারবুদ্ধি ব্যবহার করা জড়িত। কিছু অনুবাদে এমন গদ্য রয়েছে, যেগুলোতে কোনো একটা বিষয়ের উপর জোর দেওয়ার জন্য ছন্দের মতো শব্দ রয়েছে, অনেক চিত্র ব্যবহার করা হয়েছে, চমৎকারভাবে শব্দের প্রয়োগ করা হয়েছে এবং সাদৃশ্যমূলক শব্দ রয়েছে।

বাইবেলের একটা নতুন বৈশিষ্ট্য হল প্রতিটা বইয়ের শুরুতে দেওয়া বিষয়বস্তুর সারসংক্ষেপ, যা বিশেষভাবে প্রাচীন কালের একটা কবিতা অর্থাৎ পরমগীত বইয়ে বিভিন্ন বক্তার পরিবর্তন শনাক্ত করতে সাহায্য করে।

মূল ভাষার পাণ্ডুলিপি অধ্যয়ন করা কীভাবে পরিমার্জিত সংস্করণের উপর প্রভাব ফেলেছে? প্রথম নতুন জগৎ অনুবাদ বাইবেল, ইব্রীয় মেসোরিটিক পাঠ্যাংশ এবং ওয়েসকট ও হর্টের সুপরিচিত গ্রিক পাঠ্যাংশের উপর ভিত্তি করে অনুবাদ করা হয়েছিল। বাইবেলের প্রাচীন পাণ্ডুলিপি অধ্যয়ন করার উপায় আরও উন্নত হয়েছে আর এর ফলে বাইবেলের কিছু পদের মূল পাঠ্যাংশ বোঝা আরও সহজ হয়েছে। ডেড সি স্ক্রোলস্‌-এর প্রতিলিপি সহজে পাওয়া যাচ্ছে। আরও বেশি গ্রিক পাণ্ডুলিপি অধ্যয়ন করা হয়েছে। প্রমাণ হিসেবে খুঁজে পাওয়া নতুন নতুন পাণ্ডুলিপির অধিকাংশ কম্পিউটার ফরমেটে পাওয়া যাচ্ছে। এর ফলে, ইব্রীয় অথবা গ্রিক পাঠ্যাংশের কোন সংস্করণ সবচেয়ে সঠিক তা নির্ধারণ করার জন্য বিভিন্ন পাণ্ডুলিপির মধ্যে পার্থক্য বিশ্লেষণ করা আরও সহজ হয়েছে। নির্দিষ্ট কিছু পদ অধ্যয়ন করার জন্য নতুন জগৎ বাইবেল অনুবাদ কমিটি এই ধরনের বিষয়গুলোর সদ্‌ব্যবহার করেছে আর এর ফলে সেই পদগুলোতে কিছু পরিবর্তন করা হয়েছে।

উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, গ্রিক সেপ্টুয়াজিন্ট-এ ২ শমূয়েল ১৩:২১ পদে এই কথাগুলো রয়েছে: “কিন্তু তিনি তার ছেলে অম্নোনের অনুভূতিতে আঘাত দেননি কারণ অম্নোন তার প্রথম সন্তান বলে তিনি তাকে ভালোবাসতেন।” নতুন জগৎ অনুবাদ-এর আগের সংস্করণগুলোতে এই কথাগুলো অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি কারণ মেসোরিটিক পাঠ্যাংশে তা ছিল না। কিন্তু, ডেড সি স্ক্রোলস্‌-এ সেই কথাগুলো পাওয়া গিয়েছে, যেগুলো এখন ২০১৩ সালের সংস্করণে যুক্ত করা হয়েছে। একই কারণে, প্রথম শমূয়েল বইয়ে আরও পাঁচ বার ঈশ্বরের নাম যুক্ত করা হয়েছে। এ ছাড়া, গ্রিক পাঠ্যাংশ অধ্যয়ন করার ফলে মথি ২১:২৯-৩১ পদে উল্লেখিত বিবরণের ধারাবাহিকতায় একটা পরিবর্তন করা হয়েছে। তাই, শুধুমাত্র একটা মূল গ্রিক পাঠ্যাংশ দৃঢ়ভাবে অনুসরণ করার পরিবর্তে, পাণ্ডুলিপির প্রমাণের গুরুত্বের উপর ভিত্তি করে কিছু পরিবর্তন করা হয়েছে।

এগুলো হচ্ছে কিছু পরিবর্তন, যেগুলো করার ফলে অনেক ব্যক্তি বাইবেল আরও ভালোভাবে পড়তে ও বুঝতে পারছে আর তারা নতুন জগৎ অনুবাদ বাইবেলকে ভাববিনিময়কারী ঈশ্বরের কাছ থেকে এক উপহার হিসেবে গণ্য করে থাকে।

^ অনু. 10 পবিত্র শাস্ত্রের নতুন জগৎ অনুবাদ—প্রাসঙ্গিক বিষয়সহ (ইংরেজি) বাইবেলের পরিশিষ্ট ৩গ “ইব্রীয় ক্রিয়া পদ যেগুলো ক্রমাগত অথবা অগ্রগতিশীল কাজকে ইঙ্গিত  করে” শিরোনামের বিষয়বস্তু দেখুন।