সরাসরি বিষয়বস্তুতে যান

সরাসরি দ্বিতীয় মেনুতে যান

সরাসরি বিষয়সূচিতে যান

যিহোবার সাক্ষিরা

বাংলা

প্রহরীদুর্গ (অধ্যয়ন সংস্করণ)  |  এপ্রিল ২০১৫

প্রাচীনরা, অন্যদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার ব্যাপারে আপনারা কী মনে করেন?

প্রাচীনরা, অন্যদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার ব্যাপারে আপনারা কী মনে করেন?

“সকল বিষয়েরই সময় আছে।”উপ. ৩:১.

১, ২. সীমা অধ্যক্ষরা অনেক মণ্ডলীতে কোন বিষয়টা লক্ষ করেছেন?

সীমা অধ্যক্ষ প্রাচীনদের সঙ্গে তার সভা শেষ করতে যাচ্ছেন। তিনি ভাইদের দিকে তাকান। এই কঠোর পরিশ্রমী ব্যক্তিদের দিকে তাকিয়ে তার হৃদয় গভীর ভালোবাসায় পূর্ণ হয়। এই ভাইদের মধ্যে কেউ কেউ তার বাবার বয়সি। কিন্তু তারপরও, একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে তিনি চিন্তিত। তিনি তাদের জিজ্ঞেস করেন, “ভাইয়েরা, মণ্ডলীতে অন্যেরা যাতে আরও দায়িত্ব নিতে পারে, সেইজন্য তাদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার ব্যাপারে আপনারা কী করেছেন?” এই ভাইয়েরা জানেন, গত পরিদর্শনের সময় সীমা অধ্যক্ষ তাদের উৎসাহিত করেছিলেন, যেন তারা অন্যদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য আরও বেশি সময় ব্যয় করেন। অবশেষে, একজন প্রাচীন স্বীকার করেন, “আমরা খুব সামান্যই করতে পেরেছি।” অন্য সব প্রাচীন তার সঙ্গে একমত হন।

আপনি যদি একজন প্রাচীন হয়ে থাকেন, তাহলে আপনিও সম্ভবত একইরকম উত্তর দেবেন। সীমা অধ্যক্ষরা এই বিষয়টা লক্ষ করেছেন, অনেক মণ্ডলীতে কমবয়সি ও বয়স্ক ভাইদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য প্রাচীনদের আরও বেশি সময় দেওয়া প্রয়োজন, যাতে এই ভাইয়েরা মণ্ডলীর যত্ন নেওয়ার ব্যাপারে সাহায্য করতে পারেন। কিন্তু, তা করা অনেক কঠিন হতে পারে। কেন?

৩. (ক) বাইবেল কীভাবে অন্যদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার গুরুত্ব সম্বন্ধে তুলে ধরে আর কেন আমাদের সকলেরই এই প্রশিক্ষণের ব্যাপারে আগ্রহী হওয়া উচিত? (পাদটীকা দেখুন।) (খ) কোনো কোনো প্রাচীনের জন্য অন্যদের প্রশিক্ষণ দেওয়া কেন কঠিন হতে পারে?

 একজন প্রাচীন হিসেবে আপনি জানেন, ভাইদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য সময় ব্যয় করা গুরুত্বপূর্ণ। * আপনি জানেন, আরও বেশি ভাইয়ের প্রয়োজন, যাতে তারা বর্তমানে মণ্ডলীগুলোকে দৃঢ় রাখার ক্ষেত্রে এবং ভবিষ্যতে নতুন মণ্ডলীগুলোকে সমর্থন করার ক্ষেত্রে সাহায্য করতে পারে। (পড়ুন, যিশাইয় ৬০:২২.) বাইবেল বলে, আপনাকে “অন্য অন্য লোককেও শিক্ষা” দিতে হবে। (পড়ুন, ২ তীমথিয় ২:২.) কিন্তু, তা করার জন্য সময় বের করা হয়তো কঠিন হতে পারে। কারণ আপনাকে পরিবারের যত্ন নিতে হয় এবং চাকরি করতে হয়। এ ছাড়া, আপনাকে মণ্ডলীর বিভিন্ন প্রয়োজন এবং অন্যান্য জরুরি বিষয়েরও দেখাশোনা করতে হয়। যেহেতু আমাদের অনেক কিছু করতে হয়, তাই আসুন আমরা এখন আলোচনা করি, অন্যদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য সময় বের করে নেওয়া কেন আপনার জন্য অতীব গুরুত্বপূর্ণ।

প্রশিক্ষণ জরুরি

৪. কখনো কখনো, কেন প্রাচীনরা ভাইদের প্রশিক্ষণ দিতে দেরি করেন?

মণ্ডলীতে ভাইদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য সময় বের করে নেওয়া কেন কঠিন হতে পারে? কেউ কেউ এইরকম চিন্তা করতে পারেন: ‘মণ্ডলীর অন্যান্য বিষয় আরও জরুরি আর এগুলোর প্রতি দ্রুত মনোযোগ দেওয়া দরকার। আমি যদি এখনই অন্যদের প্রশিক্ষণ না দিই, তাহলে মণ্ডলীর কোনো ক্ষতি হবে না।’ এইরকম চিন্তা করা কি ঠিক হবে? এটা ঠিক, অন্যান্য বিষয়ে হয়তো দ্রুত মনোযোগ দেওয়া প্রয়োজন। কিন্তু, আপনি যদি ভাইদের প্রশিক্ষণ দিতে দেরি করেন, তাহলে আপনি আসলে মণ্ডলীর ক্ষতি করে ফেলতে পারেন।

৫, ৬. একজন গাড়িচালকের উদাহরণ থেকে আমরা কী শিখতে পারি আর এই বিষয়টাকে কীভাবে মণ্ডলীতে ভাইদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার সঙ্গে তুলনা করা যায়?

একটা উদাহরণ চিন্তা করুন। একজন গাড়িচালক জানেন, একটা গাড়ি যাতে ঠিকঠাক চলে, সেইজন্য তাকে নিয়মিতভাবে ইঞ্জিনের মোবিল পরিবর্তন করতে হবে। তারপরও, তিনি হয়তো মনে করতে পারেন, ট্যাঙ্কে পেট্রোল ভরার কাজ আরও জরুরি কারণ পেট্রোল ছাড়া গাড়ি চলবে না। তিনি হয়তো এমনও মনে করতে পারেন, তিনি যদি অনেক ব্যস্ত থাকেন, তাহলে মোবিল পরে পরিবর্তন করলেও সমস্যা নেই। কারণ গাড়িটা তো কিছুটা সময় হলেও চলবে। কিন্তু, এমন চিন্তাভাবনা বিপদজনক হতে পারে। গাড়িচালক যদি সঠিক সময়ে মোবিল পরিবর্তন না করেন, তাহলে আজ হোক বা কাল হোক, গাড়ির ক্ষতি হবেই। শেষপর্যন্ত, তাকে সেই গাড়ি মেরামত করার জন্য অনেক সময় ও টাকা খরচ করতে হবে। এখান থেকে কোন শিক্ষা লাভ করা যায়?

প্রাচীনদের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলোর প্রতি দ্রুত মনোযোগ দিতে হবে। কারণ তারা যদি সেটা না করেন, তাহলে মণ্ডলী ক্ষতিগ্রস্ত হবে। যে-গাড়িচালক নিয়মিত ট্যাঙ্কে পেট্রোল ভরেন, তার মতো প্রাচীনদেরও “যাহা যাহা ভিন্ন প্রকার [“শ্রেয়ঃ,” পাদটীকা], তাহা পরীক্ষা করিয়া চিনিতে” হবে। (ফিলি. ১:১০) কিন্তু, কোনো কোনো প্রাচীন হয়তো শ্রেয় বা বেশি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো নিয়ে এতটাই ব্যস্ত হয়ে যেতে পারেন যে, অন্যদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য তাদের হাতে কোনো সময়ই থাকে না। এটা গাড়িতে মোবিল ভরার কাজকে উপেক্ষা করার মতো হতে পারে। প্রাচীনরা যদি ভাইদের প্রশিক্ষণ দিতে দেরি করেন, তাহলে আজ হোক বা কাল হোক, প্রয়োজনীয় বিষয়ের যত্ন নেওয়ার জন্য মণ্ডলীতে যথেষ্ট প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ভাই থাকবে না।

৭. যে-প্রাচীনরা অন্যদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য সময় বের করে নেন, তাদেরকে আমাদের কীভাবে দেখা উচিত?

তাই, কখনো এইরকম চিন্তা করবেন না, অন্যদের প্রশিক্ষণ দেওয়া অগ্রাধিকারের বিষয় নয়। যে-প্রাচীনরা মণ্ডলীর ভবিষ্যতের ব্যাপারে আগ্রহী ও অন্যদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য সময় বের করে  নেন, তারা হচ্ছেন বিজ্ঞ দাস এবং ভাই-বোনদের জন্য সাহায্যকারী। (পড়ুন, ১ পিতর ৪:১০.) এর ফলে মণ্ডলী কীভাবে উপকৃত হয়?

সময়ের সদ্‌ব্যবহার করা

৮. (ক) কোন কোন কারণে প্রাচীনদের অন্যদেরকে প্রশিক্ষণ দিতে হবে? (খ) যে-প্রাচীনরা যেখানে বেশি প্রয়োজন সেখানে গিয়ে সেবা করেন, তাদের কোন জরুরি দায়িত্ব রয়েছে? (“ জরুরি এক কাজ” শিরোনামের বাক্স দেখুন।)

এমনকী যথেষ্ট অভিজ্ঞ প্রাচীনদেরও বিনয়ী হতে হবে আর এটা বুঝতে হবে, বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তারা হয়তো আর এখনকার মতো কাজ করতে পারবেন না। (মীখা ৬:৮) এ ছাড়া, প্রাচীনদের জানা উচিত, ‘কাল ও দৈবের’ বা অপ্রত্যাশিত ঘটনার কারণে হঠাৎ করে তাদের জন্য দায়িত্ব পালন করা কঠিন হয়ে যেতে পারে। (উপ. ৯:১১, ১২; যাকোব ৪:১৩, ১৪) প্রাচীনরা যেহেতু যিহোবার লোকেদের ভালোবাসেন ও তাদের জন্য চিন্তা করেন, তাই তারা বছরের পর বছর ধরে যা শিখেছেন, সেগুলো কমবয়সি ভাইদের শেখানোর জন্য কঠোর পরিশ্রম করেন।পড়ুন, গীতসংহিতা ৭১:১৭, ১৮.

৯. ভবিষ্যতের কোন ঘটনার জন্য এখন থেকে ভাইদের প্রশিক্ষণ দেওয়া অতীব গুরুত্বপূর্ণ?

যে-প্রাচীনরা অন্যদের প্রশিক্ষণ দেন, তারা আরেকটা যে-কারণে সাহায্যকারী, তা হল তাদের প্রচেষ্টার ফলে মণ্ডলী দৃঢ় হয়। এই প্রশিক্ষণ দেওয়ার ফলে আরও বেশিসংখ্যক ভাই, মণ্ডলীকে সাহায্য করার জন্য প্রস্তুত থাকবে, যাতে মণ্ডলীর সদস্যরা একতাবদ্ধ থাকতে এবং ঈশ্বরের প্রতি বিশ্বস্ত থাকতে পারে। এই বিষয়গুলো এই শেষকালে গুরুত্বপূর্ণ আর আসন্ন মহাক্লেশের সময়ে তা অতীব গুরুত্বপূর্ণ বলে প্রমাণিত হবে। (যিহি. ৩৮:১০-১২; মীখা ৫:৫, ৬) তাই, প্রিয় প্রাচীন ভাইয়েরা, আজকে থেকেই অন্যদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য নিয়মিতভাবে সময় বের করে নিন।

১০. অন্যদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য প্রাচীনরা যেন সময় বের করতে পারেন, সেইজন্য তাদের হয়তো কী করতে হবে?

১০ আমরা বুঝতে পারি, ইতিমধ্যেই আপনার অনেক ব্যস্ত তালিকা রয়েছে কারণ আপনি মণ্ডলীর গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলোর দেখাশোনা করছেন। তাই, আপনি সেই দায়িত্বগুলো পালন করার জন্য যে-সময় ব্যয় করেন, আপনাকে হয়তো সেখান থেকেই কিছুটা সময় বের করে নিয়ে, তা অন্যদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার ক্ষেত্রে ব্যয় করতে হবে। (উপ. ৩:১) তা করার মাধ্যমে আপনি নিজের সময়ের সদ্‌ব্যবহার করবেন আর ভবিষ্যতে মণ্ডলীও উপকৃত হবে।

উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি করুন

১১. (ক) বিভিন্ন দেশের প্রাচীনরা প্রশিক্ষণের বিষয়ে যে-সমস্ত পরামর্শ দিয়েছেন, সেগুলো সম্বন্ধে আগ্রহজনক বিষয়টা কী? (খ) হিতোপদেশ ১৫:২২ পদ অনুযায়ী, অন্য প্রাচীনদের পরামর্শ আলোচনা করা গুরুত্বপূর্ণ কেন?

১১ সম্প্রতি, মণ্ডলীতে আরও বেশি কাজ করার ব্যাপারে ভাইদের প্রশিক্ষণ দিতে সফল হয়েছেন এমন কয়েক জন প্রাচীনকে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল, তারা কীভাবে সফল হয়েছেন। * এই প্রাচীনরা সবাই একইরকম উপদেশ দিয়েছেন, যদিও তাদের পরিস্থিতি অনেক আলাদা। এটা কী প্রমাণ দেয়? বাইবেলভিত্তিক প্রশিক্ষণ “সর্ব্বত্র সর্ব্ব মন্ডলীতে” থাকা শিক্ষার্থীর জন্য উপকারী। (১ করি. ৪:১৭) তাই, এই প্রবন্ধে ও পরের প্রবন্ধে আমরা এই প্রাচীনদের দেওয়া কিছু পরামর্শ আলোচনা করব। (হিতো. ১৫:২২) এই প্রবন্ধগুলোতে, যারা প্রশিক্ষণ দেন, তাদের শিক্ষক হিসেবে আর যারা প্রশিক্ষণ লাভ করেন, তাদের শিক্ষার্থী হিসেবে উল্লেখ করা হবে।

১২. একজন শিক্ষককে কোন বিষয়টা তৈরি করতে হবে এবং কেন?

১২ প্রথমত, একজন শিক্ষককে উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি করতে হবে। কেন তা গুরুত্বপূর্ণ? ঠিক যেমন বীজ বপন করার আগে একজন মালিকে মাটি প্রস্তুত করতে হয়, তেমনই শিক্ষা দেওয়ার আগে একজন শিক্ষককে শিক্ষার্থীর হৃদয় প্রস্তুত করতে হয়। তাহলে, একজন শিক্ষক কীভাবে প্রশিক্ষণের জন্য উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি করতে পারেন? তিনি অতীতের একজন দক্ষ শিক্ষকের উদাহরণ অনুসরণ করতে পারেন। সেই শিক্ষক হলেন ভাববাদী শমূয়েল।

১৩-১৫. (ক) যিহোবা শমূয়েলকে কী করতে বলেছিলেন? (খ) কীভাবে শমূয়েল শৌলকে তার নতুন কার্যভারের জন্য প্রস্তুত করেন? (শুরুতে দেওয়া ছবিটা দেখুন।) (গ) শমূয়েল সম্বন্ধে বাইবেলের বিবরণ কেন বর্তমানে প্রাচীনদের জন্য উপকারী?

 ১৩ তিন হাজার বছরেরও বেশি সময় আগের কথা। একদিন যিহোবা বয়স্ক ভাববাদী শমূয়েলকে বলেন: “কল্য এমন সময়ে আমি বিন্যামীন প্রদেশ হইতে এক জন লোককে তোমার নিকটে প্রেরণ করিব; তুমি তাহাকে আমার প্রজা ইস্রায়েলের নায়ক করিবার জন্য অভিষেক করিবে।” (১ শমূ. ৯:১৫, ১৬) শমূয়েল বুঝতে পারেন, তিনি আর ইস্রায়েল জাতিকে নেতৃত্ব দেবেন না এবং যিহোবা চান যেন শমূয়েল একজন নতুন নায়ক বা নেতাকে অভিষিক্ত করেন। তাই, সেই ব্যক্তিকে নতুন কার্যভারের বিষয়ে প্রস্তুত করার জন্য শমূয়েল একটা উপায় খুঁজে পান এবং এক পরিকল্পনা তৈরি করেন।

১৪ পরদিন, শৌলের সঙ্গে শমূয়েলের দেখা হয় আর যিহোবা ভাববাদীকে বলেন: “দেখ, এ সেই ব্যক্তি।” শমূয়েল সঙ্গেসঙ্গে তার পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজ করেন। শৌলের সঙ্গে কথা বলার জন্য তিনি ভালো একটা উপলক্ষ্য তৈরি করেন। শমূয়েল শৌল ও তার দাসদের ভোজের জন্য আমন্ত্রণ জানান এবং তাদের সবচেয়ে ভালো আসনে বসতে দেন ও মাংসের সবচেয়ে উত্তম অংশ পরিবেশন করেন। শমূয়েল বলেন: “ভোজন কর; কেননা নির্দ্দিষ্ট সময়ের অপেক্ষাতে ইহা তোমার জন্য রাখা গিয়াছে।” ভোজনের পর, শমূয়েল শৌলকে তার বাড়িতে আমন্ত্রণ জানান। বাড়ি যাওয়ার পথে তারা দু-জন কথাবার্তা বলেন। শমূয়েলের বাড়িতে পৌঁছানোর পর, তারা ছাদে যান। ঘুমাতে যাওয়ার আগে পর্যন্ত, শমূয়েল “গৃহের ছাদের উপরে শৌলের সহিত কথোপকথন করিলেন।” পরদিন, শমূয়েল শৌলকে অভিষিক্ত করেন, তাকে চুম্বন করেন এবং আরও নির্দেশনা প্রদান করেন। এরপর, শৌল চলে যান। যা ঘটতে যাচ্ছে, সেটার জন্য তিনি এখন প্রস্তুত।১ শমূ. ৯:১৭-২৭; ১০:১.

১৫ শমূয়েল শৌলকে একটা জাতির নেতা হওয়ার জন্য অভিষিক্ত করেছিলেন। অবশ্য, এই বিষয়টা আর মণ্ডলীতে একজন প্রাচীন অথবা পরিচারক দাস হওয়ার জন্য ভাইদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার বিষয়টা এক নয়। তা সত্ত্বেও, শমূয়েল যেভাবে শৌলের হৃদয় প্রস্তুত করেছিলেন, তা থেকে প্রাচীনরা অনেক গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা লাভ করতে পারেন। আসুন, আমরা এখন সেগুলোর মধ্য থেকে দুটো বিষয় আলোচনা করি।

ইচ্ছুক শিক্ষক এবং উত্তম বন্ধু

১৬. (ক) ইস্রায়েলীয়রা যখন একজন রাজা চেয়েছিল, তখন শমূয়েল কেমন অনুভব করেছিলেন? (খ) যিহোবা যখন শৌলকে অভিষিক্ত করতে বলেছিলেন, তখন শমূয়েল কেমন প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছিলেন?

১৬ ইচ্ছুক হোন, দ্বিধা করবেন না। প্রথমে শমূয়েল যখন জানতে পারেন, ইস্রায়েলীয়রা একজন মানব রাজা চায়, তখন তিনি হতাশ হয়ে পড়েন এবং নিজেকে প্রত্যাখ্যাত বলে মনে করেন। (১ শমূ. ৮:৪-৮) শমূয়েল মানব রাজার বিষয়ে লোকেদের দাবি মানতে চাননি আর তাই যিহোবাকে তিন বার বলতে হয়েছিল, যেন শমূয়েল লোকেদের কথা শোনেন। (১ শমূ. ৮:৭, ৯, ২২) শমূয়েলের এইরকম অনুভূতি থাকা সত্ত্বেও, তার জায়গায় যে-ব্যক্তি নেতা হবেন, তাকে তিনি ঈর্ষা করেননি অথবা তার প্রতি রাগ প্রকাশ করেননি। যিহোবা যখন শৌলকে অভিষিক্ত করতে বলেছিলেন, তখন শমূয়েল দ্বিধা করেননি। তিনি শুধু কর্তব্যের খাতিরেই নয় বরং যিহোবাকে ভালোবাসেন বলে স্বেচ্ছায় তাঁর বাধ্য হয়েছিলেন।

১৭. বর্তমানে প্রাচীনরা কীভাবে শমূয়েলকে অনুকরণ করেন আর এর ফলে তারা কোন আনন্দ লাভ করেন?

১৭ বর্তমানে এমন অনেক অভিজ্ঞ প্রাচীন আছেন, যারা শমূয়েলকে অনুকরণ করছেন এবং প্রেমের সঙ্গে অন্যদের প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন। (১ পিতর ৫:২) এই সদয় প্রাচীনরা অন্যদের শিক্ষা দেওয়ার ব্যাপারে ইচ্ছুক আর তারা মণ্ডলীতে তাদের যে-সমস্ত বিশেষ সুযোগ রয়েছে, সেগুলো শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ভাগ করে নিতে ভয় পান না। এর পরিবর্তে, তারা মনে করেন, এই শিক্ষার্থী ভাইয়েরা হলেন চমৎকার “সহকারী,” যারা মণ্ডলীর প্রয়োজনগুলোর দেখাশোনা করার ক্ষেত্রে তাদের সাহায্য করবেন। (২ করি. ১:২৪; ইব্রীয় ১৩:১৬) আর এই নিঃস্বার্থপর প্রাচীনরা যখন দেখেন, যিহোবার লোকেদের সাহায্য করার জন্য শিক্ষার্থীরা  তাদের কর্মদক্ষতা ব্যবহার করছেন, তখন তারা অনেক আনন্দিত হন।প্রেরিত ২০:৩৫.

১৮, ১৯. কীভাবে একজন প্রাচীন প্রশিক্ষণ দেওয়ার আগে একজন শিক্ষার্থীর হৃদয় প্রস্তুত করতে পারেন আর কেন তা করা গুরুত্বপূর্ণ?

১৮ বন্ধু হোন, শুধু শিক্ষক হবেন না। শৌলের সঙ্গে যখন শমূয়েলের দেখা হয়েছিল, তখন শৌলের মস্তকে তেল ঢেলে ভাববাদী তাকে সঙ্গেসঙ্গেই রাজা হিসেবে অভিষিক্ত করতে পারতেন। তা করা হলে, নতুন রাজাকে অভিষিক্ত করা হতো ঠিকই, কিন্তু তিনি ঈশ্বরের লোকেদের নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকতেন না। এর পরিবর্তে, শমূয়েল নতুন কার্যভারের জন্য শৌলের হৃদয় প্রস্তুত করতে সময় নিয়েছিলেন। শৌলকে অভিষিক্ত করার আগে, তারা একসঙ্গে খাওয়া-দাওয়া করেছিলেন, একটু হাঁটাহাঁটি করেছিলেন, দীর্ঘসময় কথা বলেছিলেন আর এমনকী কিছুটা বিশ্রামও নিয়েছিলেন। নতুন রাজাকে অভিষিক্ত করার আগে, শমূয়েল উপযুক্ত সময়ের জন্য অপেক্ষা করেছিলেন।

অন্যদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার কাজ, বন্ধুত্ব গড়ে তোলার মাধ্যমে শুরু হয় (১৮, ১৯ অনুচ্ছেদ দেখুন)

১৯ বর্তমানেও একই বিষয় প্রযোজ্য। একজন ভাইকে প্রশিক্ষণ দিতে শুরু করার আগে, একজন প্রাচীনকে চেষ্টা করতে হবে যেন তিনি শিক্ষার্থীর বন্ধু হয়ে উঠতে পারেন। একজন শিক্ষার্থী যেন কথাবার্তা বলতে স্বচ্ছন্দবোধ করেন, সেইজন্য প্রাচীনকে কী করতে হবে, তা পরিস্থিতি ও সংস্কৃতি অনুযায়ী আলাদা হবে। তা সত্ত্বেও, আপনি পৃথিবীর যেখানেই থাকুন না কেন, আপনি যদি শিক্ষার্থীর সঙ্গে সময় কাটানোর জন্য আপনার ব্যস্ত তালিকা থেকে সময় বের করে নেন, তাহলে সেই শিক্ষার্থী বুঝতে পারবেন, আপনার কাছে তার গুরুত্ব রয়েছে। (পড়ুন, রোমীয় ১২:১০.) তার প্রতি আপনার এই প্রেমপূর্ণ যত্ন ও মনোযোগ দেখে তিনি নিঃসন্দেহে অনেক কৃতজ্ঞ হবেন।

২০, ২১. (ক) আপনি কাকে একজন সফল শিক্ষক বলবেন? (খ) পরের প্রবন্ধে আমরা কী আলোচনা করব?

২০ এটা ঠিক যে, একজন সফল শিক্ষক অন্যদের প্রশিক্ষণ দিতে ভালোবাসেন। কিন্তু একইসময়ে, যাকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে, সেই ব্যক্তির প্রতি সেই সফল শিক্ষকের ভালোবাসা থাকতে হবে। (তুলনা করুন, যোহন ৫:২০) কেন তা গুরুত্বপূর্ণ? কারণ একজন শিক্ষার্থী যখন বুঝতে পারেন, আপনি সত্যিই তার জন্য চিন্তা করেন, তখন তিনি আপনার কাছ থেকে শিখতে ইচ্ছুক হবেন। তাই প্রাচীনরা, আপনারা শুধু শিক্ষা দেওয়ার জন্যই নয় কিন্তু সেইসঙ্গে একজন উত্তম বন্ধু হওয়ার জন্য প্রচেষ্টা করুন।হিতো. ১৭:১৭; যোহন ১৫:১৫.

২১ শিক্ষার্থীর হৃদয় প্রস্তুত করার পর, একজন প্রাচীন তাকে প্রশিক্ষণ দেওয়া শুরু করতে পারেন। এক্ষেত্রে একজন প্রাচীন কোন কোন পদ্ধতি ব্যবহার করতে পারেন? পরের প্রবন্ধে তা আলোচনা করা হবে।

^ অনু. 3 এই প্রবন্ধ ও পরের প্রবন্ধ বিশেষভাবে প্রাচীনদের উদ্দেশে লেখা হয়েছে। কিন্তু, আমাদের প্রত্যেকেরই এই তথ্যের বিষয়ে আগ্রহী হওয়া উচিত। কেন? কারণ এটা সকল ভাইকে বুঝতে সাহায্য করবে, মণ্ডলীতে আরও কাজ করার জন্য তাদের প্রশিক্ষণ প্রয়োজন। মণ্ডলীতে সাহায্য করার জন্য আরও বেশি প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ভাই থাকলে, মণ্ডলীর সকলে উপকৃত হয়।

^ অনু. 11 এই প্রাচীনরা অস্ট্রেলিয়া, কোরিয়া, জাপান, দক্ষিণ আফ্রিকা, নামিবিয়া, নাইজেরিয়া, ফ্রান্স, ফ্রেঞ্চ গায়েনা, বাংলাদেশ, বেলজিয়াম, ব্রাজিল, মেক্সিকো, যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া এবং রিইউনিয়নে থাকেন।