সরাসরি বিষয়বস্তুতে যান

সরাসরি দ্বিতীয় মেনুতে যান

সরাসরি বিষয়সূচিতে যান

যিহোবার সাক্ষিরা

বাংলা

প্রহরীদুর্গ (অধ্যয়ন সংস্করণ)  |  ডিসেম্বর ২০১৪

পাঠক-পাঠিকাদের থেকে প্রশ্নসকল

পাঠক-পাঠিকাদের থেকে প্রশ্নসকল

যিরমিয় যখন বলেছিলেন, রাহেল আপন সন্তানদের জন্য রোদন করছেন, তখন তিনি কী বুঝিয়েছিলেন?

যিরমিয় ৩১:১৫ পদে আমরা পড়ি: “সদাপ্রভু এই কথা কহেন, রামায় শব্দ শুনা যাইতেছে, হাহাকার ও তীব্র রোদন! রাহেল আপন সন্তানদের জন্য রোদন করিতেছে, সে আপন সন্তানদের বিষয়ে প্রবোধ কথা মানে না, কেননা তাহারা নাই।”

রাহেল তার দুই ছেলের পরে নয় বরং আগে মারা গিয়েছিলেন। তাই, রাহেল মারা যাওয়ার ১,০০০ বছর পর লিখিত যিরমিয়ের কথাগুলো হয়তো সঠিক বলে না-ও মনে হতে পারে।

রাহেলের প্রথম ছেলে ছিলেন যোষেফ। (আদি. ৩০:২২-২৪) পরে, রাহেল তার দ্বিতীয় ছেলে বিন্যামীনের জন্মের সময় মারা যান। তাই, আমরা হয়তো জিজ্ঞেস করতে পারি: যিরমিয় ৩১:১৫ পদ কেন বলে যে, রাহেল তার ছেলেরা আর “নাই” বলে তাদের জন্য রোদন করছেন?

যোষেফের দুই ছেলে ছিল, একজনের নাম মনঃশি এবং অন্য জনের নাম ইফ্রয়িম। (আদি. ৪১:৫০-৫২; ৪৮:১৩-২০) পরবর্তী সময়, ইফ্রয়িম গোষ্ঠী ইস্রায়েলের উত্তর রাজ্যের সবচেয়ে প্রভাবশালী গোষ্ঠী হয়ে ওঠে আর এই গোষ্ঠীই উত্তর রাজ্যের দশ গোষ্ঠীকে চিত্রিত করত। রাহেলের আরেক ছেলে বিন্যামীনের কাছ থেকে যে-গোষ্ঠী উৎপন্ন হয়েছিল, তা দক্ষিণে যিহূদা রাজ্যের অংশ হয়ে উঠেছিল। তাই এটা বলা যেতে পারে যে, রাহেল ইস্রায়েলের অর্থাৎ উত্তর এবং দক্ষিণ রাজ্যের সমস্ত মায়েদের চিত্রিত করেছিল।

যিরমিয়ের বই যখন লেখা হয়, তখন ইতিমধ্যেই অশূরীয়রা ইস্রায়েলের উত্তর রাজ্যকে পরাজিত করে এবং সেখানকার অনেক লোককে বন্দি করে নিয়ে যায়। কিন্তু, ইফ্রয়িম বংশের কিছু লোক হয়তো যিহূদায় পালিয়ে গিয়েছিল। খ্রিস্টপূর্ব ৬০৭ সালে বাবিলীয়রা দক্ষিণে যিহূদা রাজ্যের দুই গোষ্ঠীকে পরাজিত করেছিল এবং তাদেরকে বন্দি করে নিয়ে গিয়েছিল। এদের মধ্যে অনেককে রামা নগরে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল, যা যিরূশালেম থেকে প্রায় ৮ কিলোমিটার (৫ মাইল) উত্তরে অবস্থিত ছিল। (যির. ৪০:১) কাউকে কাউকে হয়তো বিন্যামীনের এলাকায় হত্যা করা হয়েছিল, যেখানে রাহেলকে কবর দেওয়া হয়েছিল। (১ শমূ. ১০:২) তাই, রাহেলের রোদন হয়তো সমস্ত বিন্যামীনীয়ের মৃত্যুতে অথবা এর কাছাকাছি এলাকা রামায় যাদেরকে হত্যা করা হয়েছিল, তাদের মৃত্যুতে যে-শোক করা হয়েছিল, সেটাকে নির্দেশ করে। এ ছাড়া, এও হতে পারে যে, যিরমিয়ের কথাগুলো ঈশ্বরের লোকেদের মৃত্যুর কিংবা বন্দিত্বের কারণে ইস্রায়েলের সমস্ত মায়েদের রোদনকে নির্দেশ করে।

যা-ই হোক না কেন, তার ছেলেদের জন্য রাহেলের রোদন সম্বন্ধে যিরমিয়ের কথাগুলো ভবিষ্যদ্‌বাণীমূলক ছিল। এই কথাগুলো সেই ঘটনাকে নির্দেশ করে, যা শত শত বছর পর শিশু যিশুর সময়ে ঘটেছিল। রাজা হেরোদ আজ্ঞা দিয়েছিলেন, যেন যিরূশালেমের দক্ষিণে অবস্থিত বৈৎলেহমে দুই বা এর কমবয়সি সমস্ত ছেলে সন্তানকে হত্যা করা হয়। সেই মায়েদের কান্নার চরম আর্তনাদের কথা কল্পনা করুন, যাদের ছেলেরা মারা গিয়েছিল, যারা আর “নাই।” এটা এমন ছিল যেন সেই কান্না সুদূর রামা পর্যন্ত শোনা গিয়েছিল, যা যিরূশালেমের উত্তরে অবস্থিত ছিল।—মথি ২:১৬-১৮.

তাই, যিরমিয়ের সময়ে ও সেইসঙ্গে যিশুর সময়ে, “আপন সন্তানদের জন্য” রাহেলের “রোদন,” এই কথাগুলো নিজেদের সন্তানদের মৃত্যুর কারণে যিহুদি মায়েরা যে-শোক করেছিল, সেটা বর্ণনা করার জন্য ব্যবহার করা হয়েছে। অবশ্য, যারা মারা গিয়ে “শত্রুর” অর্থাৎ মৃত্যুর ‘দেশে’ গিয়েছে, তারা হয়তো সেই সময় ফিরে আসবে, যখন মৃতেরা পুনরুত্থিত হবে।—যির. ৩১:১৬; ১ করি. ১৫:২৬.