সরাসরি বিষয়বস্তুতে যান

সরাসরি দ্বিতীয় মেনুতে যান

সরাসরি বিষয়সূচিতে যান

যিহোবার সাক্ষিরা

বাংলা

প্রহরীদুর্গ (অধ্যয়ন সংস্করণ)  |  ডিসেম্বর ২০১৪

তিনি ‘পথ জানিতেন’

তিনি ‘পথ জানিতেন’

যিহোবার সাক্ষিদের পরিচালকগোষ্ঠীর একজন সদস্য গায় হলিস পিয়ার্স, ২০১৪ সালের ১৮ মার্চ মঙ্গলবার তার পার্থিব জীবন শেষ করেন। মৃত্যুর সময় তার বয়স ছিল ৭৯ বছর। খ্রিস্টের একজন ভাই হিসেবে তিনি পুনরুত্থিত হন এবং তার স্বর্গীয় পুরস্কার লাভ করেন।—ইব্রীয় ২:১০-১২; ১ পিতর ৩:১৮.

গায় পিয়ার্স ১৯৩৪ সালে নভেম্বর মাসের ৬ তারিখে যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার অবার্নে জন্মগ্রহণ করেন এবং ১৯৫৫ সালে বাপ্তিস্ম নেন। তিনি ১৯৭৭ সালে বোন পেনিকে বিয়ে করেন এবং পরিবার গড়ে তোলেন। এ ছাড়া, অনেকের কাছে তিনি একজন বাবার মতো ছিলেন। ১৯৮২ সালে, তিনি এবং পেনি একসঙ্গে অগ্রগামীর কাজ শুরু করেন। ১৯৮৬ সালে, তিনি যুক্তরাষ্ট্রে সীমা অধ্যক্ষ হিসেবে সেবা করতে শুরু করেন এবং ১১ বছর ধরে তা করে চলেন।

১৯৯৭ সালে, গায় এবং পেনি যুক্তরাষ্ট্রের বেথেল পরিবারের সদস্য হিসেবে সেবা করতে শুরু করেন। ভাই পিয়ার্স সার্ভিস ডিপার্টমেন্ট-এ কাজ করতেন এবং ১৯৯৮ সালে তিনি পরিচালকগোষ্ঠীর পারসোনেল (কর্মী সংক্রান্ত) কমিটি-র একজন সহায়ক হিসেবে নিযুক্ত হন। ১৯৯৯ সালে অক্টোবর মাসের ২ তারিখে বার্ষিক সভায় ঘোষণা করা হয় যে, তাকে পরিচালকগোষ্ঠীর একজন সদস্য হিসেবে নিযুক্ত করা হয়েছে। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে তিনি বিভিন্ন সময় পারসোনেল, রাইটিং (লিখন সংক্রান্ত), পাবলিশিং (প্রকাশনা সংক্রান্ত) এবং কোঅর্ডিনেটরস্‌ (সমন্বয়কারী) কমিটি-তে কাজ করেন।

ভাই পিয়ার্স একজন হাসিখুশি স্বভাবের এবং রসিক ব্যক্তি ছিলেন। বিভিন্ন পটভূমি এবং সংস্কৃতির লোকেরা স্বচ্ছন্দে তার কাছে আসতে পারত। কিন্তু, মূলত যে-কারণে লোকেরা তার প্রতি আকৃষ্ট হতো, তা হল তার প্রেম, নম্রতা, ঈশ্বরের আইন ও নীতির প্রতি তার সম্মান এবং যিহোবার প্রতি তার পূর্ণ বিশ্বাস। গায় পিয়ার্স প্রায়ই বলতেন, সূর্য হয়তো না-ও উদিত হতে পারে কিন্তু যিহোবার প্রতিজ্ঞা পূর্ণ হবেই আর এই বিষয়টা তিনি পৃথিবীর সবাইকে জানাতে চাইতেন।

ভাই পিয়ার্স যিহোবার জন্য কঠোর পরিশ্রম করতেন, প্রতিদিন ভোর বেলা উঠতেন এবং প্রায়ই অনেক রাত পর্যন্ত কাজ করতেন। খ্রিস্টান ভাই-বোনদের উৎসাহিত করার জন্য তিনি পৃথিবীর বিভিন্ন জায়গায় ভ্রমণ করতেন আর কেউ যদি তার কাছে সাহায্য কিংবা পরামর্শ চাইত, তাহলে তিনি সবসময় তাদেরকে সময় দিতেন। এমনকী অনেক বছর পরও সহবিশ্বাসীরা তার আতিথেয়তা, বন্ধুত্ব এবং শাস্ত্রীয় পরামর্শের কথা মনে রাখবে।

তার স্ত্রী, ছয় সন্তান, নাতি-নাতনি এবং প্রপৌত্র ও সেইসঙ্গে তার অনেক আধ্যাত্মিক ছেলে-মেয়ে আমাদের এই প্রিয় ভাই এবং বন্ধুর অনেক অভাব বোধ করবে। পরিচালকগোষ্ঠীর একজন সহসদস্য মার্ক স্যান্ডারসন ২০১৪ সালের মার্চ মাসের ২২ তারিখ শনিবার ব্রুকলিন বেথেলে ভাই পিয়ার্সের স্মরণার্থে বক্তৃতা দেন। তিনি ভাই পিয়ার্সের স্বর্গীয় আশা সম্বন্ধে বলেন এবং যিশুর এই কথাগুলো পড়েন: “আমার পিতার বাটীতে অনেক বাসস্থান আছে, . . . আমি যখন যাই ও তোমাদের জন্য স্থান প্রস্তুত করি, তখন পুনর্ব্বার আসিব, এবং আমার নিকটে তোমাদিগকে লইয়া যাইব; যেন, আমি যেখানে থাকি, তোমরাও সেইখানে থাক। আর আমি যেখানে যাইতেছি, তোমরা তাহার পথ জান।”—যোহন ১৪:২-৪.

আমরা ভাই পিয়ার্সের অভাব বোধ করব। কিন্তু আমরা আনন্দিত যে, তিনি তার স্থায়ী ‘বাসস্থানে’ যাওয়ার ‘পথ জানিতেন।’