সরাসরি বিষয়বস্তুতে যান

সরাসরি দ্বিতীয় মেনুতে যান

সরাসরি বিষয়সূচিতে যান

যিহোবার সাক্ষিরা

বাংলা

প্রহরীদুর্গ (অধ্যয়ন সংস্করণ)  |  আগস্ট ২০১৪

ঈশ্বরের বাক্য ব্যবহার করুন—এই বাক্য জীবন্ত!

ঈশ্বরের বাক্য ব্যবহার করুন—এই বাক্য জীবন্ত!

“ঈশ্বরের বাক্য জীবন্ত ও কার্য্যসাধক।”—ইব্রীয় ৪:১২.

১, ২. যিহোবা মোশিকে কী করতে বলেছিলেন এবং যিহোবা কী প্রতিজ্ঞা করেছিলেন?

ধরুন, আপনাকে ঈশ্বরের লোকেদের একজন প্রতিনিধি হিসেবে পৃথিবীর সবচেয়ে ক্ষমতাবান শাসকের সঙ্গে কথা বলতে হবে। তখন আপনার কেমন লাগবে? সম্ভবত আপনি উদ্‌বিগ্ন ও আতঙ্কিত হয়ে পড়বেন এবং কথা বলতে পারবেন না। কী বলতে হবে, সেটার জন্য আপনি কীভাবে নিজেকে প্রস্তুত করবেন? ঈশ্বরের একজন বার্তাবাহক হিসেবে আপনি কি আস্থা সহকারে কথা বলতে পারবেন?

মোশি ঠিক একইরকম এক পরিস্থিতিতে পড়েছিলেন। তিনি অত্যন্ত নম্র ব্যক্তি ছিলেন। (গণনা. ১২:৩) কিন্তু, যিহোবা তাকে অত্যন্ত রূঢ় ও অহংকারী একজন ব্যক্তি ফরৌণের কাছে পাঠিয়েছিলেন। যিহোবা একটা আদেশ দেওয়ার জন্য মোশিকে তার কাছে পাঠিয়েছিলেন। আর সেটা হল ঈশ্বরের লক্ষ লক্ষ লোককে দাসত্ব থেকে মুক্ত করার আদেশ। (যাত্রা. ৫:১, ২) তাই আমরা বুঝতে পারি, কেন মোশি যিহোবাকে এই প্রশ্ন জিজ্ঞেস করেছিলেন: “আমি কে, যে ফরৌণের নিকটে যাই, ও মিসর হইতে ইস্রায়েল-সন্তানদিগকে বাহির করি?” মোশি সম্ভবত ভেবেছিলেন, ফরৌণের সামনে দাঁড়িয়ে কথা বলার যোগ্যতা তার নেই। কিন্তু, যিহোবা মোশির কাছে প্রতিজ্ঞা করেছিলেন, মোশি একা নন। যিহোবা বলেছিলেন, “নিশ্চয় আমি তোমার সহবর্ত্তী হইব।”—যাত্রা. ৩:৯-১২.

৩, ৪. (ক) কেন মোশি ভয় পেয়েছিলেন? (খ) কেন আপনিও মোশির মতো একইরকম অনুভব করতে পারেন?

কেন মোশি ভয় পেয়েছিলেন? কারণ তিনি ভেবেছিলেন, যিহোবা ঈশ্বরের একজন বার্তাবাহককে ফরৌণ গ্রহণ করবেন না অথবা তার কথায় কান দেবেন না।  এ ছাড়া, মোশি এটা ভেবেও ভয় পেয়েছিলেন যে, ইস্রায়েলীয়দের মিশর থেকে বের করে নিয়ে যাওয়ায় নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য ঈশ্বর তাকে মনোনীত করেছেন কি না, তা নিয়ে ইস্রায়েলীয়রা সন্দেহ করবে। তাই তিনি যিহোবাকে বলেছিলেন: “দেখুন, তাহারা আমাকে বিশ্বাস করিবে না, ও আমার রবে মনোযোগ করিবে না, কেননা তাহারা বলিবে, সদাপ্রভু তোমাকে দর্শন দেন নাই।”—যাত্রা. ৩:১৫-১৮; ৪:১.

আপনার সম্বন্ধে কী বলা যায়? আপনাকে হয়তো কখনোই কোনো ক্ষমতাবান শাসকের সঙ্গে কথা বলতে হয়নি। কিন্তু, আপনার জন্য কি এলাকার লোকেদের কাছে যিহোবা এবং তাঁর রাজ্য সম্বন্ধে কথা বলা কঠিন? মোশির উদ্দেশে যিহোবার আদেশ আর এর পরের ঘটনা  আমাদেরকে এক গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা প্রদান করতে পারে।

“তোমার হস্তে ওখানি কি?”

৫. যিহোবা মোশির হাতে কী দিয়েছিলেন আর এটা কীভাবে তাকে আস্থা অর্জন করতে সাহায্য করেছিল? (শুরুতে দেওয়া ছবিটা দেখুন।)

মোশি যখন যিহোবাকে বলেছিলেন, লোকেরা তাকে বিশ্বাস করবে না এই বিষয়টা নিয়ে তিনি ভয় পাচ্ছেন, তখন ঈশ্বর মোশিকে এমনভাবে প্রস্তুত করেছিলেন, যেন তিনি সফল হতে পারেন। বাইবেল বলে: “সদাপ্রভু তাঁহাকে কহিলেন, তোমার হস্তে ওখানি কি? তিনি বলিলেন, যষ্টি। তখন তিনি কহিলেন, উহা ভূমিতে ফেল। পরে তিনি ভূমিতে ফেলিলে তাহা সর্প হইল; আর মোশি তাহার সম্মুখ হইতে পলায়ন করিলেন। তখন সদাপ্রভু মোশিকে কহিলেন, ‘হস্ত বিস্তার করিয়া উহার লেজ ধর’, তাহাতে তিনি হস্ত বিস্তার করিয়া ধরিলে উহা তাঁহার হস্তে যষ্টি হইল, ‘যেন তাহারা বিশ্বাস করে যে, সদাপ্রভু . . . তোমাকে দর্শন দিয়াছেন।’” (যাত্রা. ৪:২-৫) ঈশ্বরের শক্তিতে, মোশির হাতে সেই যষ্টি একটা সাপ হয়ে গিয়েছিল! এই অলৌকিক কাজ প্রমাণ দেবে যে, মোশি ঈশ্বরের বার্তাবাহক এবং তিনি তাঁর কাছ থেকে কর্তৃত্ব পেয়েছেন। যিহোবা তাকে বলেছিলেন: “তুমি এই যষ্টি হস্তে করিবে, ইহা দ্বারাই তোমাকে সেই সকল চিহ্ন-কার্য্য করিতে হইবে।” (যাত্রা. ৪:১৭) এই প্রমাণ হাতে থাকায়, মোশি ফরৌণ ও সেইসঙ্গে ঈশ্বরের লোকেদের কাছে গিয়ে কথা বলার জন্য প্রয়োজনীয় আস্থা অর্জন করতে পেরেছিলেন।—যাত্রা. ৪:২৯-৩১; ৭:৮-১৩.

৬. (ক) আমরা যখন প্রচার করি, তখন আমাদের হাতে কী থাকা উচিত এবং কেন? (খ) কোন অর্থে “ঈশ্বরের বাক্য জীবন্ত” এবং কীভাবে এটি “কার্য্যসাধক,” তা ব্যাখ্যা করুন।

আমরা যখন অন্যদের কাছে ঈশ্বরের বার্তা জানাই, তখন আমাদের হাতে কী থাকে? আমাদের কাছে বাইবেল থাকে আর আমরা এটি ব্যবহার করার জন্য অত্যন্ত উৎসুক। কেউ কেউ মনে করে, বাইবেল হল কেবল একটি ভালো বই। কিন্তু, বাইবেলে এর চেয়েও বেশি কিছু রয়েছে। এর মধ্যে আমাদের জন্য ঈশ্বরের বার্তা রয়েছে। (২ পিতর ১:২১) এর মধ্যে ঈশ্বরের বিভিন্ন প্রতিজ্ঞা রয়েছে ও সেইসঙ্গে বাইবেল আমাদের এটাও জানায় যে, তাঁর রাজ্য কী সম্পাদন করবে। পৌল লিখেছিলেন: “ঈশ্বরের বাক্য জীবন্ত ও কার্য্যসাধক।” (পড়ুন, ইব্রীয় ৪:১২.) কোন অর্থে ঈশ্বরের বাক্য জীবন্ত? ঈশ্বরের বাক্যে উল্লেখিত যিহোবার সমস্ত প্রতিজ্ঞা পরিপূর্ণতার দিকে এগিয়ে যায় এবং পুরোপুরিভাবে সফল হয়। (যিশা. ৪৬:১০; ৫৫:১১) আর একজন ব্যক্তি যখন ঈশ্বরের বাক্য সম্বন্ধে এই বিষয়গুলো বুঝতে পারেন, তখন তিনি বাইবেলে যা পড়েন, সেটা তার জীবনে এক জোরালো প্রভাব ফেলে।

৭. কীভাবে আমরা “সত্যের বাক্য যথার্থরূপে” ব্যবহার করতে পারি?

যিহোবা আমাদেরকে তাঁর জীবন্ত বাক্য বাইবেল দিয়েছেন। এই হাতিয়ার থাকায়, আমরা প্রমাণ করতে পারি যে, আমরা যা বলি, সেটা নির্ভরযোগ্য এবং তা ঈশ্বরের কাছ থেকে এসেছে। এই কারণে তীমথিয়কে প্রশিক্ষণ দেওয়ার সময়, পৌল তাকে “সত্যের বাক্য যথার্থরূপে” ব্যবহার করতে উৎসাহিত করেছিলেন। (২ তীম. ২:১৫) কীভাবে আমরা পৌলের পরামর্শ কাজে লাগাতে পারি? অন্যদের সামনে আমরা যে-শাস্ত্রপদগুলো পড়ব, সেগুলো উত্তমরূপে বাছাই করার মাধ্যমে। আমাদের লক্ষ্য হল, যারা আমাদের কথা শোনে, তাদের হৃদয় স্পর্শ করা। ২০১৩ সালে আমরা যে-ট্র্যাক্টগুলো পেয়েছি, সেগুলো সেই উদ্দেশ্যে আমাদের সাহায্য করার জন্যই তৈরি করা হয়েছে।

উত্তমরূপে বাছাই করা একটা শাস্ত্রপদ পড়ুন

৮. একজন পরিচর্যা অধ্যক্ষ ট্র্যাক্টগুলো সম্বন্ধে কী মন্তব্য করেছেন?

প্রতিটা ট্র্যাক্ট একইভাবে প্রস্তুত করা হয়েছে। তাই, আমরা যখন একটা ট্র্যাক্ট ব্যবহার করতে শিখব, তখন আমরা সবগুলো ট্র্যাক্টই ব্যবহার করতে পারব। যুক্তরাষ্ট্রের  হাওয়াইয়ের একজন পরিচর্যা অধ্যক্ষ লিখেছিলেন: “এই নতুন হাতিয়ারগুলো ঘরে ঘরে প্রচার ও জনসাধারণ্যে সাক্ষ্যদান উভয় ক্ষেত্রেই এতটা কার্যকরী হবে, তা আমরা ভাবতেও পারিনি।” কেন এই ট্র্যাক্টগুলো ব্যবহার করা এতটা সহজ? তিনি মনে করেন, এর কারণ হচ্ছে সেগুলোর প্রথম পৃষ্ঠায় দেওয়া প্রশ্ন ও সেটার সম্ভাব্য বিভিন্ন উত্তর। এর ফলে গৃহকর্তা ভুল উত্তর দিচ্ছেন কি না, সেই ব্যাপারে গৃহকর্তার কোনো উদ্‌বিগ্নতা থাকে না। সেই ভাই বলেন, ট্র্যাক্টগুলো যে-উপায়ে লেখা হয়েছে, সেটার কারণে আরও অনেক লোক কথা বলতে ইচ্ছুক হয়েছে আর এর ফলে আগ্রহজনক আলোচনা শুরু হয়েছে।

৯, ১০. (ক) আমাদেরকে বাইবেল ব্যবহার করতে সাহায্য করার জন্য ট্র্যাক্টগুলো কীভাবে তৈরি করা হয়েছে? (খ) আপনি কোন ট্র্যাক্টগুলো ব্যবহার করার ক্ষেত্রে অনেক সফল হয়েছেন এবং কেন?

প্রতিটা ট্র্যাক্টে উত্তমরূপে বাছাই করা একটা শাস্ত্রপদ রয়েছে, যা আমরা গৃহকর্তার সামনে পড়তে পারি। উদাহরণ স্বরূপ, দুঃখকষ্ট কি কখনো শেষ হবে? শিরোনামের ট্র্যাক্টের কথাই ধরুন। গৃহকর্তাকে প্রথম পৃষ্ঠায় দেওয়া প্রশ্নটা জিজ্ঞেস করুন। সেই প্রশ্নের উত্তর হিসেবে তিনি “হ্যাঁ,” “না” অথবা “হয়তো হবে” বেছে নিতে পারেন। তার উত্তর যা-ই হোক না কেন, ভিতরের পৃষ্ঠায় চলে যান এবং বলুন, “বাইবেল যা বলে, তা এখানে রয়েছে।” তারপর প্রকাশিত বাক্য ২১:৩, ৪ পদ পড়ুন।

১০ আপনি যখন বাইবেল সম্বন্ধে আপনি কী মনে করেন? শিরোনামের ট্র্যাক্ট ব্যবহার করেন, তখন গৃহকর্তা তিনটে উত্তরের যেটাই বেছে নিন না কেন, সেটা নিয়ে উদ্‌বিগ্ন হবেন না। ট্র্যাক্টের ভিতরের পৃষ্ঠায় চলে যান এবং বলুন, “বাইবেল বলে, ‘পবিত্র শাস্ত্রের প্রত্যেকটি কথা ঈশ্বরের কাছ থেকে এসেছে।’” আপনি এটাও বলতে পারেন, “আসলে, এই পদ আরও বেশি কিছু জানায়।” তারপর আপনার বাইবেল খুলুন এবং ২ তীমথিয় ৩:১৬, ১৭ পদ পুরোটা পড়ুন।

১১, ১২. (ক) আপনার পরিচর্যাকে আরও উপভোগ্য করে তোলার জন্য আপনি কীভাবে ট্র্যাক্টগুলো ব্যবহার করতে পারেন? (খ) কীভাবে ট্র্যাক্টগুলো আপনাকে পুনর্সাক্ষাতের জন্য প্রস্তুত করতে পারে?

১১ আপনি হয়তো ট্র্যাক্ট থেকে আরও কিছু বিষয় পড়ে আলোচনা করার সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। গৃহকর্তার প্রতিক্রিয়ার ওপর এই বিষয়টা নির্ভর করবে। কিন্তু, লোকেরা যেরকম প্রতিক্রিয়াই দেখাক না কেন, তারা ট্র্যাক্ট থেকে বার্তা লাভ করতে পেরেছে এবং আপনি তাদের সামনে ঈশ্বরের বাক্য থেকে কিছু অংশ পড়তে পেরেছেন। তাদের সঙ্গে প্রথম সাক্ষাতে আপনি যদি শুধু একটা বা দুটো শাস্ত্রপদও পড়েন, তবুও পরে তাদের কাছে ফিরে যেতে পারেন এবং আলোচনা চালিয়ে যেতে পারেন।

১২ প্রতিটা ট্র্যাক্টের শেষ পৃষ্ঠায় এই উপশিরোনাম রয়েছে, “চিন্তা করার মতো বিষয়।” এই উপশিরোনামের নীচে একাধিক শাস্ত্রপদ এবং একটা প্রশ্ন রয়েছে, যেগুলো পুনর্সাক্ষাতের সময় আলোচনা করা যেতে পারে। ভবিষ্যৎকে আপনি কোন দৃষ্টিতে দেখেন? শিরোনামের ট্র্যাক্টে এই প্রশ্ন রয়েছে, “জগতের পরিস্থিতি আরও ভালো করার জন্য ঈশ্বর কীভাবে জগৎকে পরিবর্তন করবেন?”  এরপর মথি ৬:৯, ১০ পদ এবং দানিয়েল ২:৪৪ পদ উল্লেখ করা আছে। মৃত ব্যক্তিরা কি সত্যিই আবার জীবিত হতে পারে? শিরোনামের ট্র্যাক্টে প্রশ্নটা হল, “কেন আমরা বৃদ্ধ হই ও মারা যাই?” তারপর আদিপুস্তক ৩:১৭-১৯ পদ এবং রোমীয় ৫:১২ পদ উল্লেখ করা আছে।

১৩. বাইবেল অধ্যয়ন শুরু করার জন্য ট্র্যাক্টগুলো কীভাবে ব্যবহার করা যায়, তা ব্যাখ্যা করুন।

১৩ এই ট্র্যাক্টগুলো আমাদেরকে বাইবেল অধ্যয়ন শুরু করতে সাহায্য করার জন্য তৈরি করা হয়েছে। একজন ব্যক্তি যদি ট্র্যাক্টের পিছনের পৃষ্ঠায় দেওয়া কিউআর কোড স্ক্যান করেন, তাহলে তিনি সরাসরি আমাদের ওয়েবসাইটে চলে যেতে পারবেন। সেখানে তাকে বাইবেল অধ্যয়ন করার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হবে। এ ছাড়া, এই ট্র্যাক্টগুলোতে ঈশ্বরের কাছ থেকে সুসমাচার! ব্রোশার সম্বন্ধে তুলে ধরা হয়েছে। প্রতিটা ট্র্যাক্টে সেই ব্রোশারের একটা পাঠ সম্বন্ধে উল্লেখ করা আছে। উদাহরণ স্বরূপ, কে আসলে এই জগৎকে নিয়ন্ত্রণ করছে? শিরোনামের ট্র্যাক্টে সেই ব্রোশারের পাঠ ৫ পড়তে বলা হয়েছে। এক সুখী পারিবারিক জীবনের চাবিকাঠি কী? শিরোনামের ট্র্যাক্টে পাঠ ৯ পড়তে বলা হয়েছে। এই ট্র্যাক্টগুলো আমাদেরকে প্রথম সাক্ষাতে ও সেইসঙ্গে পুনর্সাক্ষাতের সময় বাইবেল ব্যবহার করতে সাহায্য করার জন্য তৈরি করা হয়েছে। এই উপায়ে আমরা হয়তো আরও বেশি বাইবেল অধ্যয়ন শুরু করতে পারব। ঈশ্বরের বাক্যকে কার্যকরী উপায়ে ব্যবহার করার জন্য আপনি আর কী করতে পারেন?

লোকেরা চিন্তা করে এমন কোনো বিষয় নিয়ে আলোচনা করুন

১৪, ১৫. কীভাবে আপনি পরিচর্যার সময় পৌলের উদাহরণ অনুকরণ করতে পারেন?

১৪ পৌল পরিচর্যার সময় ‘অধিক লোকের’ বা যত বেশি সম্ভব লোকের চিন্তাভাবনা বোঝার ব্যাপারে অনেক আগ্রহী ছিলেন। (পড়ুন, ১ করিন্থীয় ৯:১৯-২৩.) কেন? কারণ তিনি “সর্ব্বজনের কাছে” অর্থাৎ যিহুদি ও অন্যান্য জাতির কাছে সত্য জানাতে চেয়েছিলেন, যাতে তারা রক্ষা পেতে পারে। (প্রেরিত ২০:২১) পরিচর্যার জন্য প্রস্তুতি নেওয়ার এবং ‘সমুদয় মনুষ্যের’ কাছে প্রচার করার সময় আমরা কীভাবে পৌলের উদাহরণ অনুকরণ করতে পারি?—১ তীম. ২:৩, ৪.

১৫ প্রতি মাসে, আমাদের রাজ্যের পরিচর্যা-য় আমরা কীভাবে আমাদের বার্তা উপস্থাপন করতে পারি, সেই বিষয়ে পরামর্শ তুলে ধরা হয়। সেগুলো ব্যবহার করার চেষ্টা করুন। কিন্তু, আপনার এলাকার লোকেরা যদি ভিন্ন কোনো বিষয়ে আগ্রহী হয়, তাহলে কী করা যেতে পারে? এমন কিছু বলার প্রস্তুতি নিন, যে-বিষয়ে তারা আগ্রহী। আপনার আশেপাশের লোকেরা কোন বিষয় নিয়ে চিন্তা করে থাকে? এমন একটা শাস্ত্রপদ বাছাই করুন, যা সেই বিষয়ের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত। একজন সীমা অধ্যক্ষ ও তার স্ত্রী কীভাবে পরিচর্যায় বাইবেল ব্যবহার করতে সমর্থ হয়েছে, তা এভাবে বর্ণনা করেছে: “আমরা যদি সংক্ষেপে এবং সরাসরি মূল বিষয় আলোচনা করি, তাহলে বেশিরভাগ গৃহকর্তাই আমাদের একটা শাস্ত্রপদ পড়ার সুযোগ দেয়। প্রথমে আমরা বাইবেল হাতে নিয়ে স্থানীয় রীতি অনুযায়ী শুভেচ্ছা জানাই আর এরপর শাস্ত্রপদ পড়ি।” পরের অনুচ্ছেদগুলো থেকে আমরা এমন কিছু বিষয়, প্রশ্ন ও শাস্ত্রপদ বিবেচনা করব, যেগুলো পরিচর্যায় কার্যকরী বলে প্রমাণিত হয়েছে। এগুলোর মধ্যে কিছু হয়তো আপনিও আপনার এলাকায় ব্যবহার করতে চাইবেন।

আপনি কি পরিচর্যার সময় কার্যকরী উপায়ে বাইবেল ও ট্র্যাক্টগুলো ব্যবহার করছেন? (৮-১৩ অনুচ্ছেদ দেখুন)

১৬. পরিচর্যার সময় যিশাইয় ১৪:৭ পদ কীভাবে ব্যবহার করা যেতে পারে, তা ব্যাখ্যা করুন।

১৬ আপনি যদি এমন এক এলাকায় বাস করেন, যেখানে অপরাধ ও দৌরাত্ম্য রয়েছে, তাহলে আপনি হয়তো একজন ব্যক্তিকে এই প্রশ্ন জিজ্ঞেস করতে পারেন: “আপনি কি কল্পনা করতে পারেন, সংবাদপত্রের প্রথম পৃষ্ঠায় এইরকম একটা খবর এসেছে: ‘পুরো পৃথিবী শান্ত ও সুস্থির হয়ে গিয়েছে আর লোকেরা আনন্দে চিৎকার করছে’? বাইবেলের যিশাইয় ১৪:৭ পদে এটাই বলা হয়েছে। আসলে, বাইবেলের মধ্যে শান্তিপূর্ণ সময় সম্বন্ধে ঈশ্বরের অনেক প্রতিজ্ঞা রয়েছে, যা শীঘ্র আসবে।” তারপর বাইবেল থেকে এইরকম একটা প্রতিজ্ঞা পড়ে দেখার প্রস্তাব দিন।

১৭. কথাবার্তা বলার সময় আমরা কীভাবে মথি ৪:৪ পদ ব্যবহার করতে পারি?

১৭ আপনার এলাকার অনেক পুরুষের জন্য তাদের পরিবারের ভরণ-পোষণ জোগানো কি কঠিন? যদি তা-ই হয়, তাহলে আপনি হয়তো এই প্রশ্ন জিজ্ঞেস করে কথাবার্তা শুরু করতে পারেন: “পরিবারের সুখের জন্য একজন ব্যক্তিকে ঠিক কত টাকা আয় করতে হবে?” সেই ব্যক্তি উত্তর দেওয়ার পর, আপনি বলতে পারেন: “অনেক পুরুষ এর চেয়েও বেশি টাকা আয় করে, কিন্তু তারপরও তাদের পরিবার পরিতৃপ্ত হয় না। তাহলে, কোন বিষয়টা সত্যিই প্রয়োজন?” এরপর মথি ৪:৪ পদ পড়ুন এবং বাইবেল অধ্যয়নের প্রস্তাব দিন।

১৮. অন্যদের সান্ত্বনা দেওয়ার জন্য আমরা কীভাবে গীতসংহিতা ৩৭:১১ পদ ব্যবহার করতে পারি?

 ১৮ আপনার এলাকার লোকেরা কি সাম্প্রতিক কোনো দুঃখজনক ঘটনার কারণে কষ্টভোগ করছে? তাহলে আপনি এভাবে কথাবার্তা শুরু করতে পারেন: “আমি একটু সান্ত্বনা দেওয়ার জন্য আপনার কাছে এসেছি। (পড়ুন, গীতসংহিতা ৩৭:১১.) আপনি কি লক্ষ করেছেন, ঈশ্বর আমাদের জন্য কোন দুটো বিষয় চান? ‘শান্তি’ ও ‘আমোদ’ অর্থাৎ সুখ। এটা জানা সান্ত্বনাদায়ক যে, তিনি চান যেন আমরা এক উত্তম জীবন লাভ করি। কিন্তু কীভাবে সেটা সম্ভব?” তারপর সুসমাচার ব্রোশার থেকে সম্পর্কযুক্ত কোনো অধ্যায় দেখান।

১৯. ধর্মের ব্যাপারে আগ্রহী এমন লোকেদের সঙ্গে কথা বলার সময় প্রকাশিত বাক্য ১৪:৬, ৭ পদ কীভাবে ব্যবহার করা যেতে পারে, তা ব্যাখ্যা করুন।

১৯ প্রচারে আপনার কি খ্রিস্টীয়জগতের এমন লোকেদের সঙ্গে দেখা হয়, যারা ধর্মের ব্যাপারে আগ্রহী? যদি দেখা হয়, তাহলে আপনি হয়তো এই প্রশ্ন জিজ্ঞেস করে কথাবার্তা শুরু করতে পারেন: “কোনো স্বর্গদূত যদি আপনার সঙ্গে কথা বলতেন, তাহলে আপনি কি তার কথা শুনতেন? (পড়ুন, প্রকাশিত বাক্য ১৪:৬, ৭.) এই স্বর্গদূতের কাছে কোন গুরুত্বপূর্ণ বার্তা রয়েছে? স্বর্গদূত বলেন, ‘যিনি স্বর্গ, পৃথিবী উৎপন্ন করিয়াছেন,’ তাঁকে আমাদের ভয় পাওয়া উচিত। কিন্তু, আপনি কী মনে করেন, কীভাবে আমরা ঈশ্বরের প্রতি প্রকৃত ভয় দেখাতে পারি? তার মতামত শোনার পর ধন্যবাদ জানান এবং দ্বিতীয় বিবরণ ৬:২ পদ পড়ুন, যেখানে বলা আছে: “যেন আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুকে ভয় করিয়া তুমি, তোমার পুত্ত্র ও তোমার পৌত্ত্রাদি যাবজ্জীবন আমার আজ্ঞাপিত তাঁহার এই আজ্ঞা ও বিধি সকল পালন কর, এইরূপে যেন তোমার দীর্ঘ পরমায়ু হয়।” এরপর আপনি বলতে পারেন: “আপনি নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন, ঈশ্বরকে ভয় করার অর্থ হচ্ছে, তাঁর আজ্ঞা পালন করা। কিন্তু অনেক লোক ঈশ্বরের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আজ্ঞাটা জানে না আর সেটা হল, আমাদের সমস্ত হৃদয় দিয়ে ঈশ্বরকে ভালোবাসতে হবে।” কীভাবে আমরা ঈশ্বরের প্রতি প্রেম প্রকাশ করতে পারি, সেই বিষয়ে আলোচনা করার জন্য পুনরায় ফিরে যাওয়ার সময় নির্ধারণ করুন।

২০. (ক) কাউকে ঈশ্বরের নাম জানানোর জন্য হিতোপদেশ ৩০:৪ পদ কীভাবে ব্যবহার করা যেতে পারে? (খ) আপনি ব্যক্তিগতভাবে প্রচারে কোন শাস্ত্রপদ ব্যবহার করায় সফল হয়েছেন?

২০ কোনো অল্পবয়সির সঙ্গে আপনি হয়তো এভাবে কথাবার্তা শুরু করতে পারেন: “আমি এমন একটা শাস্ত্রপদ পড়তে চাই, যেখানে অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটা প্রশ্ন জিজ্ঞেস করা হয়েছে। (পড়ুন, হিতোপদেশ ৩০:৪.) যেহেতু কোনো মানুষই এগুলো করতে পারে না, তাই এই পদ নিশ্চয়ই আমাদের সৃষ্টিকর্তাকে নির্দেশ করছে। * তাঁর নাম কী, তা আমরা কীভাবে জানতে পারি? তোমাকে বাইবেল থেকে তা দেখাতে পারলে আমি অনেক খুশি হব।”

আপনার পরিচর্যায় ঈশ্বরের বাক্যের শক্তি ব্যবহার করুন

২১, ২২. (ক) উত্তমরূপে বাছাই করা একটা শাস্ত্রপদ কীভাবে একজন ব্যক্তির জীবনকে পরিবর্তন করেছে? (খ) আপনি পরিচর্যার সময় কী করার জন্য দৃঢ়সংকল্পবদ্ধ হয়েছেন?

২১ উত্তমরূপে বাছাই করা একটা শাস্ত্রপদের প্রতি লোকেরা কীভাবে প্রতিক্রিয়া দেখাবে, তা আপনি আগে থেকে জানতে পারবেন না। উদাহরণ স্বরূপ, অস্ট্রেলিয়ায় দু-জন সাক্ষি একজন যুবতীর দরজায় কড়া নেড়েছিল। তাদের মধ্যে একজন তাকে জিজ্ঞেস করেছিলেন, “আপনি কি ঈশ্বরের নাম জানেন?” আর এরপর তিনি তার বাইবেল থেকে গীতসংহিতা ৮৩:১৮ পদ পড়েছিলেন। সেই যুবতী বলেন, “সেটা শুনে আমি আকাশ থেকে পড়েছিলাম! তারা চলে যাওয়ার পর, আমি ৫৬ কিলোমিটার (৩৫ মাইল) গাড়ি চালিয়ে একটা বইয়ের দোকানে যাই, যাতে অন্যান্য বাইবেল অনুবাদ যাচাই করতে পারি। এরপর আমি একটা অভিধানেও সেই নাম দেখি। ঈশ্বরের নাম যিহোবা, এই বিষয়ে নিশ্চিত হওয়ার পর আমি ভাবতে থাকি, এমন আর কী আছে, যা আমি জানি না?” খুব শীঘ্র, তিনি ও তার হবু স্বামী বাইবেল অধ্যয়ন শুরু করেন এবং পরে তারা বাপ্তিস্ম নেয়।

২২ লোকেদের জীবনকে পরিবর্তন করার ক্ষমতা ঈশ্বরের বাক্যের রয়েছে। কোনো ব্যক্তি যখন বাইবেল পড়েন, তখন তিনি যিহোবার প্রতিজ্ঞাগুলোর প্রতি দৃঢ়বিশ্বাস গড়ে তুলতে পারেন। এই বিশ্বাস তাকে তার শেখা বিষয়গুলো কাজে লাগানোর জন্য অনুপ্রাণিত করে। (পড়ুন, ১ থিষলনীকীয় ২:১৩.) আমাদের বলা যেকোনো কথার চেয়ে বাইবেলের বার্তার আরও বেশি শক্তি রয়েছে। তাই, আসুন আমরা পরিচর্যার সময় যত বেশি সম্ভব ঈশ্বরের বাক্য ব্যবহার করার জন্য দৃঢ়সংকল্পবদ্ধ হই। এই বাক্য জীবন্ত!

^ অনু. 20 ২০০২ সালের ১৫ মে প্রহরীদুর্গ পত্রিকার ৫ পৃষ্ঠা দেখুন।