সরাসরি বিষয়বস্তুতে যান

সরাসরি দ্বিতীয় মেনুতে যান

সরাসরি বিষয়সূচিতে যান

যিহোবার সাক্ষিরা

বাংলা

সজাগ হোন!  |  অক্টোবর ২০১৪

 বাইবেলের দৃষ্টিভঙ্গি | প্রার্থনা

প্রার্থনা

প্রার্থনা

কেউ কি আমাদের প্রার্থনা শোনেন?

“হে প্রার্থনা-শ্রবণকারী, তোমারই কাছে মর্ত্ত্যমাত্র আসিবে।”—গীতসংহিতা ৬৫:২.

লোকেরা যা বলে

অনেকের মতে, প্রার্থনা “ছাদ পর্যন্ত যায় কিনা সন্দেহ!” যে-সমস্ত লোক কষ্ট পাচ্ছে, তারা হয়তো সন্দেহ করে যে, তাদের প্রার্থনা কেউ শোনেন কি না।

বাইবেল যা বলে

বাইবেল জানায়, “ধার্ম্মিকগণের প্রতি প্রভুর [ঈশ্বরের] চক্ষু আছে; তাহাদের বিনতির প্রতি তাঁহার কর্ণ আছে; কিন্তু প্রভুর মুখ দুরাচারদের প্রতিকূল।” (১ পিতর ৩:১২) এটি স্পষ্টভাবে দেখায় যে, ঈশ্বর আমাদের প্রার্থনা শোনেন। তবে, বিশেষ করে তিনি সেই ব্যক্তিদের প্রার্থনা শুনতে ইচ্ছুক, যারা তাঁর নীতিগুলো মেনে চলে। আমরা যখন প্রার্থনা করি, তখন ঈশ্বর যে তা শুনতে ইচ্ছুক, এই বিষয়ে আরেকটা শাস্ত্রপদ বলে: “তাঁহার উদ্দেশে আমরা এই সাহস প্রাপ্ত হইয়াছি যে, যদি তাঁহার ইচ্ছানুসারে কিছু যাচ্ঞা করি, তবে তিনি আমাদের যাচ্ঞা শুনেন।” (১ যোহন ৫:১৪) তাই, যারা আন্তরিকভাবে প্রার্থনা করে তাদের এটা জানা প্রয়োজন যে, কোন ধরনের প্রার্থনা ঈশ্বরের ইচ্ছার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ হতে পারে।

 কীভাবে আমাদের প্রার্থনা করা উচিত?

“আর প্রার্থনাকালে তোমরা অনর্থক পুনরুক্তি করিও না।” —মথি ৬:৭.

লোকেরা যা বলে

বৌদ্ধ, ক্যাথলিক, হিন্দু ও ইসলামের মতো বিভিন্ন ধর্মের অনুসারীদের প্রার্থনা মুখস্থ বলার আর কত বার তারা তা বলেছে, তা গোনার জন্য মালা ব্যবহার করতে শেখানো হয়।

বাইবেল যা বলে

প্রার্থনা হৃদয় থেকে আন্তরিকভাবে করা উচিত; প্রার্থনা মুখস্থ করে বার বার আওড়ানো উচিত নয়। শাস্ত্র আমাদের জোরালোভাবে জানায়: “আর প্রার্থনাকালে তোমরা অনর্থক পুনরুক্তি করিও না, যেমন জাতিগণ করিয়া থাকে; কেননা তাহারা মনে করে, বাক্যবাহুল্যে তাহাদের প্রার্থনার উত্তর পাইবে। অতএব তোমরা তাহাদের মত হইও না, কেননা তোমাদের কি কি প্রয়োজন, তাহা যাচ্ঞা করিবার পূর্ব্বে তোমাদের পিতা জানেন।”—মথি ৬:৭, ৮.

যে-কারণে এটা গুরুত্বপূর্ণ

উপাসকরা যখন এমনভাবে প্রার্থনা করে যেটা ঈশ্বর অনুমোদন করেন না, তখন সম্ভবত তারা তাদের সময় নষ্ট করে অথবা ঈশ্বরকে অসন্তুষ্ট করে। বাইবেল সতর্ক করে যে, ঈশ্বরের ইচ্ছার সঙ্গে মিল না রেখে যারা প্রার্থনা করে, তারা তাঁর “ঘৃণার যোগ্য।”—হিতোপদেশ ২৮:৯, বাংলা কমন ল্যাঙ্গুয়েজ ভারশন।

কার কাছে আমাদের প্রার্থনা করা উচিত?

[ঈশ্বর] সদাপ্রভুর [“যিহোবার,” NW] অন্বেষণ কর, যাবৎ তাঁহাকে পাওয়া যায়, তাঁহাকে ডাক, যাবৎ তিনি নিকটে থাকেন।”—যিশাইয় ৫৫:৬.

লোকেরা যা বলে

কিছু কিছু বিশ্বাসী ব্যক্তি মরিয়ম অথবা স্বর্গদূত কিংবা ‘সাধুদের’ কাছে প্রার্থনা করে। তারা এই ‘সাধুদের’ ও স্বর্গদূতদের কাছে এই আশা করে প্রার্থনা করে যে, এই ব্যক্তিরা ঈশ্বরের কাছে তাদের হয়ে মিনতি করবে।

বাইবেল যা বলে

সত্য উপাসকদের উচিত ‘আমাদের স্বর্গস্থ পিতার’ কাছে প্রার্থনা করা। (মথি ৬:৯) বাইবেল আমাদের জোর দিয়ে বলে: “কোন বিষয়ে ভাবিত হইও না, কিন্তু সর্ব্ববিষয়ে প্রার্থনা ও বিনতি দ্বারা ধন্যবাদ সহকারে তোমাদের যাচ্ঞা সকল ঈশ্বরকে জ্ঞাত কর।”—ফিলিপীয় ৪:৬. ▪ (g১৪-E ০৯)