সরাসরি বিষয়বস্তুতে যান

সরাসরি দ্বিতীয় মেনুতে যান

সরাসরি বিষয়সূচিতে যান

যিহোবার সাক্ষিরা

বাংলা

সজাগ হোন!  |  জানুয়ারি ২০১৪

 এটা কি সুপরিকল্পিতভাবে সৃষ্ট?

ডিএনএ-র ধারণ ক্ষমতা

ডিএনএ-র ধারণ ক্ষমতা

যারা কম্পিউটার ব্যবহার করে, তারা প্রচুর পরিমাণ ডিজিটাল তথ্য তৈরি করে, যা প্রয়োজনে ব্যবহার করার জন্য সংরক্ষণ করে রাখার দরকার হয়। বিজ্ঞানীরা ডিজিটাল তথ্য সংগ্রহ করে রাখার জন্য প্রকৃতির মধ্যে প্রাপ্ত ডিএনএ-র অতুলনীয় তথ্য ধারণের পদ্ধতি নকল করার মাধ্যমে বর্তমান পদ্ধতির আমূল পরিবর্তন করার আশা করছে।

বিবেচনা করুন: সজীব কোষগুলোতে প্রাপ্ত ডিএনএ কোটি কোটি বায়োলজিক্যাল তথ্য ধারণ করতে পারে। ইউরোপীয়ান বায়োইনফর্মেটিক্স ইনস্টিটিউট-এর গবেষক নিক গোল্ডম্যান বলেন, ‘আমরা লোমশ ম্যামথের হাড় থেকে ডিএনএ বের করে নিতে পারি আর এটার প্রকৃতি নির্ণয় করতে পারি। এটা অতিরিক্ত ক্ষুদ্র, ঘন আর এতে তথ্য ধারণ করানোর জন্য কোনো শক্তির প্রয়োজন হয় না, তাই এটা বহন ও সংরক্ষণ করা খুব সহজ।’ ডিএনএ কি মানুষের পাঠানো তথ্য মজুত করতে পারে? গবেষকদের উত্তর হল হ্যাঁ।

ঠিক যেভাবে কোনো ডিজিটাল মিডিয়া তথ্য ধারণ করে, ঠিক সেভাবেই বিজ্ঞানীরা ডিএনএ-র মধ্যে সাংকেতিক টেক্সট, ছবি ও অডিও ফাইল প্রবেশ করিয়েছে। পরবর্তীকালে গবেষকরা মজুত করা তথ্য পুনরুদ্ধার করতে সফল হয়েছে, যা ঠিক একইরকম ছিল। বিজ্ঞানীরা মনে করে যে, এই পদ্ধতিতে ০.০৪ আউন্স (১ গ্রাম) কৃত্রিম ডিএনএ প্রায় ৩০,০০,০০০ সিডি-র সমপরিমাণ তথ্য ধারণ করতে পারে, যা কয়েক হাজার না হলেও অন্তত কয়েক-শো বছর সংরক্ষণ করে রাখা যাবে। এই প্রক্রিয়ার, পুরো পৃথিবীর ডিজিটাল আর্কাইভ ধারণ করার ক্ষমতা রয়েছে। তাই ডিএনএ-কে “দি আলটিমেট হার্ড ড্রাইভ” বলে অভিহিত করা হয়েছে।

আপনি কী মনে করেন? ডিএনএ-র ধারণ ক্ষমতা কি ক্রমবিবর্তনের মাধ্যমে এসেছে? না কি এটাকে সুপরিকল্পিতভাবে সৃষ্টি করা হয়েছে? ▪ (g13-E 12)